তথাগত ও দেবলীনার বিচ্ছেদের কারণ বিবৃতি?সংবাদমাধ্যমে অকপট বিবৃতি

টলিপাড়ার অন্যতম জনপ্রিয় জুটি হিসেবে পরিচিত তথাগত এবং দেবলীনা। শুধুমাত্র সম্পর্ক না, তাদের দুজনের মধ্যে বন্ধুত্ব ছিল দীর্ঘদিনের।কিন্তু এই তগাগত এবং দেবলীনার বিচ্ছেদ ঘটেছে। বর্তমানে তারা আর একসাথে থাকেন না।সূত্রের খবর, তৃতীয় ব্যক্তির অনুপ্রবেশ তাদের সম্পর্কের অবনতি ঘটিয়েছে।

Debolina and Tathagata

ভটভটি’ ছবিটি পরিচালনা করার সময়ে নায়িকা বিবৃতি সাথে তথাগতর ঘনিষ্টতা বাড়ে।শুধু তাই না, শোনা যায় সেই সময় দেবলীনা বাড়িতে না থাকায় তারা একসাথে সহবাস করেছে।সংবাদমাধ্যমে অভিনেত্রী বিবৃতি অবশ্য এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তার দাবি ‘‘তথাদা, দেবলীনাদির সঙ্গে দেখা হলে এই গুজব নিয়ে হাসাহাসি হবে আমাদের মধ্যে।’’ এই বিষয়ে তাদের সাথে কথা হয়েছে কি জিজ্ঞাসা করলে অভিনেত্রী জানান ‘‘প্রত্যেকেই কাজে ব্যস্ত। আলাদা করে দেখা হয়নি কারও সঙ্গে। কথা হয়নি এ সব নিয়ে। আর ওঁদের আলাদা থাকার ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না। তার থেকেও বড় কথা, এটা সম্পূর্ণ ওঁদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমি ওঁদের সঙ্গে এই নিয়ে কথা কেনই বা বলব? ওঁরা যখন বিয়ে করেছিলেন, আমার থেকে অনুমতি নেননি। যখন আলাদা হচ্ছেন, তখনই বা আমার সঙ্গে কথা কেন বলবেন? আমি ও রকম মানুষ নই যে ফোন করে এ সব বিষয়ে কথা বলব বা জিজ্ঞাসা করব। সেটা করাটাকে আমি নিজের সীমা লঙ্ঘন করা বলে মনে করি।’’

Bibriti

ভটভটি সিনেমা চলাকালীন অভিনেত্রী ঋষভ বসুর সঙ্গে প্রেম করতেন তিনি। সেই সম্পর্ক বিচ্ছেদ ঘটেছে।এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন ‘‘গুজব রটানোর কাজটা ঠিক করে করতে পারত লোকে। আমার সঙ্গে ঋষভের নাম জড়ালে বরং ঠিক হত।’’ দেবলিনা এবং তথাগত দুজনের দাম্পত্য জীবনের স্বাক্ষী বিবৃতি। এমনকি দেবলীনা নিজে বিবৃতিকে বলেছেন ‘‘তথা সব কথা আগে আমাকে এসে বলে। তথা ঘুম থেকে উঠে জল খেলেও সেটা আমি জানতে পারি, কারণ জলটা আমি বাড়িয়ে দিই।’’ অন্যদিকে তথাগত প্রসঙ্গে অভিনেত্রীর মতে ‘‘আমি যতটা তথাদার ব্যাপারে জানি, বিয়ে মানে ওঁর কাছে বন্ধুত্ব। দেবলীনাদির সঙ্গে সেই বন্ধুত্বটা নষ্টও হয়নি বলেই আমার বিশ্বাস। এর বেশি আমি কিছুই জানি না।’’

কিছুদিন আগেই সংবাদমাধ্যমে দেবলিনা এবং তথাগত এক ছাদের নীচে থাকেন না। দেবলীনা এই প্রসঙ্গে জানান ‘আমার মা হৃদ্‌রোগী। কাজের বাইরে তাঁর দেখভালে ব্যস্ত আমি। আমার দায়িত্বে তিনটি সারমেয়ও রয়েছে। এ সবের বাইরে আমার কোনও দিকে নজর নেই।’’

Back to top button