Tollywood

Rukmini:কোটি টাকার মালকিন,দেবের প্রেমিকা রুক্মিণী মৈত্র তবু জীবনে থেকে গেল বড় আক্ষেপ! বলতে বলতে ঝরঝর করে কাঁদলেন নায়িকা! শুনে চোখে জল রচনার

একটা বিশাল কষ্টের সময়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছেন অভিনেত্রী রুক্মিণী মৈত্র। এটা একটা দুঃস্বপ্ন ছিল তাঁর কাছে। আজ তিনি টলিউড বলিউডের সুপারস্টার এবং বর্তমানে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম সুপারস্টার দেবের প্রেমিকা। এত সম্পত্তি এত প্রতিপত্তি তবুও জীবনে একটা বড় আক্ষেপ রয়ে গেছে এই নায়িকার।


রুক্মিণীর একটি পুরনো ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে নতুন করে। সেখানে তিনি দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে এসেছিলেন খেলতে। উপস্থিত ছিলেন সুপারস্টার দেব নিজেও। সেই মঞ্চে নিজের বড় আক্ষেপের কথা সবার সামনে প্রকাশ করেছিলেন রুক্মিণী মৈত্র।

অভিনেত্রী আগে মডেলিং করতেন। তবে দেবের হাজারবার প্রস্তাব দেওয়ার পরেও কখনো সিনেমায় আসতে রাজি হননি। কিন্তু তিনি নিয়তিতে বিশ্বাসী এবং তার জন্যই তিনি মনে করেন আজ টলিউড বলিউড উভয় ক্ষেত্রে সফল হয়েছেন।


আমাদের প্রতিটি মানুষের জীবনে একটা বড় স্বপ্ন থাকে জীবনে কিছু করে দেখানোর এবং মা-বাবার মুখ উজ্জ্বল করে তোলা। কেউ সেটা করতে পারেন এবং কেউ সেটা করতে গিয়ে এতটাই সময় চলে যায় যে আর সেই সময়টা থাকে না যেখানে বাবা-মা গর্ব করতে পারবেন। কারণ তার আগে কারোর কারুর মা বাবা গত হয়ে যান।

ঠিক এমনটাই গল্প রুক্মিণীর জীবনে ঘটেছে। অভিনেত্রী বাবার খুব আদরের ছিলেন এবং তিনি বাবার কাছ থেকে প্রচুর অনুপ্রেরণা পেয়েছেন কাজে এগিয়ে যাওয়ার জন্য। নায়িকার বাবা বলেছিলেন তিনি যদি মডেলিং করতে চান অবশ্যই করতে পারেন কিন্তু তার সঙ্গে পড়াশোনা ঠিক রাখতে হবে।


অভিনেতা দেব যখন ২০১৭ সালে নিজের প্রযোজনা সংস্থা খোলার কথা ভাবছিলেন সেই সময় তিনি কাজের জন্য প্রস্তাব দিয়েছিলেন রুক্মিণীকে। অভিনেত্রী তখন বেশ কয়েকবার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সেই প্রস্তাব। অবশেষে রাজি হয়েছিলেন।


অভিনেত্রীর বাবা পনেরো বছর সিনেমা হলে যাননি সিনেমা দেখতে। এমনকি নিজের হবু জামাইকে পর্যন্ত চিনতেন না তিনি। দেব বলেছিলেন যে তাঁর নাম দীপক অধিকারী এবং তিনি ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে রাজনীতিতে প্রবেশ করার কথা ভাবছেন। মেয়ে যখন প্রথম অভিনয় প্রবেশ করলেন সেই সময় অভিনেত্রীর বাবা অভিনেত্রীকে বলেছিলেন তিনি এত বছর সিনেমা হলে যাননি কিন্তু মেয়ের সিনেমা দেখতে অবশ্যই যাবেন। তিনি মেয়েকে অনুরোধ করেছিলেন প্রিমিয়ারে না গেলেও পরে বাবাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য।


কিন্তু অভিনেত্রীর একটাই আক্ষেপ যে সিনেমা মুক্তি পাবার মাত্র ১১ দিন আগে বাবা চলে গেলেন। সেই কষ্ট সহ্য করতে পারেন না এখনো তিনি। তাই হয়তো দিদি নাম্বার ওয়ান এর মঞ্চে কেঁদে ফেলেছিলেন অভিনেত্রী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button