Adrit Roy: “যে হারে সিদ্ধার্থ মোদক থুড়ি আদৃতকে তার অনস্ক্রিন ছেলে মেয়ে পা/বাবাই বলে কন্ফিডেন্টলি ছবি পোস্ট করছে, তাতে বিশ্ব বং ক্রাশ থেকে বিশ্ব “বাবা” হয়ে না যায়”! Troll করছে নিন্দুকরা

এবার সেরা বাবার অ্যাওয়ার্ড যাঁর ঝুলিতে যাচ্ছে তাঁর নাম নিয়ে কারোর কোনও সন্দেহ নেই। তিনি হলেন আমাদের সিড। ‘মিঠাই’ ধারাবাহিকে নায়ক হিসেবে জনপ্রিয় অভিনেতা আদৃত রায়। বং ক্রাশ তিনি সকল মেয়েদের। তবে এবার তিনি শুধু হিরো হিসেবে প্রিয় নন, একজন বাবা হিসেবেও প্রিয় হয়ে উঠছেন ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের কাছে।
Screenshot 20230306 201549 Facebook

এতদিন মা হারা শাক্যের প্রতি সিডের কনসার্ন আমরা সকলেই দেখেছি। এবার ছোট্ট মেয়ে মিষ্টির প্রতিও তার বাবার স্নেহ সকলকে মুগ্ধ করছে। এদিকে সেই মিষ্টির বাবা কিন্তু সিড নয়। তবুও শাক্য ও মিষ্টিকে যেভাবে ভালোবেসে যাচ্ছে সিড, তা অতুলনীয়। আর তাই দেখে বড় থেকে ছোট সবার ‘ড্রিম ফাদার’ হয়ে উঠছে মিঠাই-এর সিড অর্থাৎ উচ্ছেবাবু।
xxxxxxxxxxxxxx

মায়ের স্নেহ আমরা অনেক ধারাবাহিকেই দেখেছি। কিন্তু বাবার এই স্নেহের মুহূর্তগুলো আমরা এতোভালো করে এই ধারাবাহিকেই দেখতে পাচ্ছি। আর সেই বাবার রোল খুবই ভালোভাবে দর্শকদের কাছে ফুটিয়ে তুলছেন আদৃত রায়। শুধু যে ছেলে মেয়েকেই ভালোবাসছে তা কিন্তু নয়। স্ত্রী মিঠাই-কেও সমান ভালোবাসে সিড। আমরা জানি, মিঠাই ধারাবাহিকে কিছু মাস আগেই দেখিয়েছিল মিঠাই-এর মৃত্যু হয়েছে।

এরপর অনবরত মিঠাই-এর চাহিদার তাগিদে নির্মাতারা মিঠাইকে ধারাবাহিকে ফেরাতে একপ্রকার বাধ্য হয়েছে। মিঠাই-এর এন্ট্রিতে বর্তমানে মিঠাই ধারাবাহিকে টান টান উত্তেজনার সৃষ্টি করেছে।
মিঠাই-এর মৃত্যুর পর বেশ কিছু মাস ধরে মিঠি আর মিঠাই-সিডের ছেলে শাক্যকে নিয়ে চলছিল এই ধারাবাহিক। তারপরই সিডের জীবনে নতুন করে মিঠাই-এর আগমন। এবং মিঠাই-এর সঙ্গে এন্ট্রি হয়েছে ছোট্ট মিষ্টির।
yyyyy

তবে মিঠাই তার পুরোনো স্মৃতি সব ভুলে গিয়েছে। সিড তাই সর্বদা প্রয়াস করে চলেছে যাতে মিঠাই নিজের স্মৃতি নিজেই ফিরে পায়। পাশাপাশি মিষ্টির প্রতি সিডের এরূপ ভালোবাসা দেখে এক নেটিজেন লিখেছেন, যে হারে সিদ্ধার্থ মোদক থুড়ি আদৃত দা কে তার অনস্ক্রিন ছেলে মেয়ে পা/বাবাই বোলে কন্ফিডেন্টলি ছবি পোস্ট করছে, তাতে করে উনি এবার বিশ্ব “বং ক্রাশ”থেকে বিশ্ব “বাবা” হয়ে না যায়!! মানে ছেলেমেয়েরা এবার তাদের মাদের বলবে, বয়ফ্রেন্ড পড়ে আগে সিদ্ধার্থ মোদক-এর মতো বাবা এনে দাও”।

Back to top button