Connect with us

Food

Pink Tea: কেমন ভাবে তৈরি করবেন কাশ্মীরের বিখ্যাত গোলাপি চা? জেনে নিন এর সহজ রেসিপি

Published

on

চা খেতে তো বাঙালি ভীষণ ভালোবাসে। সকালে গরম গরম ধোঁয়া ওঠা এক কাপ চা না খেলে বাঙালির দিন শুরু হয় না। আবার বিকালবেলা জমজমাট কোন টিফিনের সাথে এক কাপ চা বাঙালি নিয়ে বসবেই। তবে আজ আপনাদের একটি চায়ের কথা বলব যা আমাদের সাধারণ চায়ের মত একদম নয়। এই চা স্বাদে গন্ধে বর্ণে অনেকটাই আলাদা। দেশে-বিদেশে ঝড় তুলেছে কাশ্মীরের এই গোলাপি চা।আমেরিকার মাটি হোক কিংবা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কোন দেশ, সবেতেই এখন বিরাজ করছে গোলাপি চা। কিন্তু এই চায়ের রং এরকম হচ্ছে কী করে?

কাশ্মীরের স্থানীয় বাসিন্দারা এই চায়ের সঙ্গে মুচমুচে কুলচা, টোল পড়া গিরদা খেতে বেশ পছন্দ করেন। অনেকে আবার ব্যাগেলের মতো দেখতে পোস্ত ও তিলের বীজ ছড়ানো গোলাকার গর্তওয়ালা পাউরুটির সঙ্গেও বার বার এ চায়ে চুমুক দেন। অনেকেই এই চাকে বলে থাকেন নুন চা। কাশ্মীরের স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে এই চায়ে অনেক উপকারিতা আছে।

এই চা বানানো হয় বেকিং সোডা,নুন এবং গ্রিন টি দিয়ে।চায়ে নুন থাকার ফলে তা পান করলে পাহাড়ি এলাকায় ডিহাইড্রেশন কম হয়।অনেকেই এই চায়ের কাপে ছড়িয়ে দেন স্টার আনিস। অনেকে আবার এতে আধভাঙা বাদাম ছড়িয়ে দেন। কেমন ভাবে তৈরি করবেন এই নুন চা? প্রথমে একটি পাত্রে পরিমাণ মতো জলে গ্রিন টি এবং এক চিমটে বেকিং সোডা দিয়ে বেশ অনেক ক্ষণ ধরে ফোটাতে হবে। বেকিং সোডার জেরেই চায়ের রং গোলাপিতে পরিণত হয়। তবে সঙ্গে সঙ্গে তা হয় না। গ্রিন টি-তে বেকিং সোডা দিয়ে জল ফোটালে তা রং বদলে প্রথমে পীতাভ বাদামি রঙের হয়ে যায়। এর পর চায়ে গাঢ় মেরুন রং ধরতে থাকে।

গোলাপি চায়ের রং কী করে পরিবর্তিত হয়? একটি আন্তর্জাতিক পত্রিকায় দাবি, ‘কাশ্মীরি চায়ে পলিফেনল অনেকটা ফেনোলসালফথালেইন-এর মতো কাজ করে। যেটি ফেনল রেড বলেও পরিচিত।’ চায়ের রং বদলে বার্গন্ডি হওয়ামাত্র সেই রং ধরে রাখতে পাত্রে বরফ বা ঠান্ডা জল ঢালা হয়। এর পর তাতে দুধ মেশালে গোলাপি রং দেখা যায়। তবে এই চা পরিবেশনের অনেক ঝক্কি আছে।

চায়ের রং বদল হওয়া মাত্রই কিন্তু তা পরিবেশন করা হয় না। একটি হাতায় এই পানীয় ভরে তা চায়ের পাত্র থেকে অন্য পাত্রে বার বার উঁচু-নিচু করে ঢালা হয়। বার বার একই পদ্ধতিতে চা ঢালার ফলে তাতে বাতাস ঢুকে বেশ ফেনা ফেনা হয়ে ওঠে। অনেকটা কফি মেশিনে তৈরি কফির মতো।আর এই পদ্ধতি সম্পন্ন করতে লাগে তিন চার ঘন্টা মত। তাই কি ভাবছেন, বাড়িতে তৈরি করবেন নাকি গোলাপি চা?

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Trending