Tollywood

Shaan-Trina: সারা বছর বোম্বেতে থাকলেও পুজোর সময়‌ শান বাংলা গান গাইবেন না এটা হয় না! চলে এলো তার পুজোর ফাটাফাটি গান কদম তলায় কে, থাকছে অনেক চমক, সব জেনে নিন ঝটপট

আরতো মাত্র আট দিন তারপরেই বাঙালি সমস্ত দুঃখ ভুলে আনন্দ মেতে উঠবে কারণ দু’বছর মানুষ দুর্গাপুজায় একটু আনন্দ করতে পারেনি।দু’বছর আগে তো এমন অবস্থা হয়ে গেছিল সেই বহু বছর আগে বাংলায় আশ্বিনের ঝড়ের সময় যে বিপর্যয় দেখা গিয়েছিল ঠিক সেরকম যেন হয়ে গেছিল করোনা ঝড়ে। তবে এসব মানুষের কৃতকর্মের শাস্তি তাই অনেক পাপের ফল ভুগে মানুষ আবার ঘুরে দাঁড়াচ্ছে।

এই বছর যেন আরো বেশি জাকজমক করে পুজো হচ্ছে পশ্চিমবাংলায় আসলে দু’বছর যে বাজেট খরচা করতে পারেননি নির্মাতারা সেগুলো সব এই বছরে ঢেলে দিচ্ছেন তারা।শপিং তো বলে শেষ করা যাবেনা অনলাইন অফলাইন সব জায়গাতেই ভিড় তার সঙ্গে আবার পুজোর আগে অনলাইন সাইটগুলো প্রচুর প্রচুর ছাড় দিচ্ছে তাই মানুষ এবার কেনাকাটা করেছে মন ভরে। কিন্তু সেই পুজোর গান ব্যাপারটা কোথায় গেল? স্বর্ণযুগের প্রতিবছর পুজোয় বাঙালি শিল্পীরা একটা করে ক্যাসেট বার করতেন। সারেগামা, আশা অডিও এইসব বড় সংস্থা থেকে বার হতো এই পুজো ক্যাসেট। ২০১০-২০১১ পর্যন্তও হয়েছে এটা।

কিন্তু এরপর যবে থেকে প্রযুক্তি চলে এলো তবে থেকে ক্যাসেট বা সিডি ব্যাপারটা সরে গেল একদম কারণ এখন আর কেউ ডিভিডি প্লেয়ার বা টেপ রেকর্ডার কেনে না। বহু বছর পুজোর কোন গান সেরকম আমরা পাইনি। কিন্তু চলতি বছরে ব্যাপারটা একদম আলাদা।

ফিরে এসেছে আবার সেই পুজোর গান।কিছুদিন আগেই ইমন চক্রবর্তী আইগিরি নন্দিনী প্রকাশ করেছেন আর এবার বাংলার বিখ্যাত গায়ক শান যিনি মূলত বম্বেতেই প্রতিষ্ঠিত তিনি নিজের বাঙালি সত্ত্বাকে ধরে রাখতে প্রকাশ করলেন পুজোর গান কদম তলায় কে? গতকাল হয়ে গেল তার মুক্তি বর্ধমান রাজবাড়িতে যেখানে পিকু পরিণীতার মত সিনেমাগুলো স্যুট হয়েছে। সেখানেই আমন্ত্রিত ছিল টলি গসিপ টিম।

প্রথমেই বলা যাক এই গানটা কিন্তু একদম পেপি সং। অর্থাৎ পুজোতে যদি ধুনুচির সঙ্গে জমিয়ে নাচতে চান তাহলে এই গানটা একদম সেরা। বহু বছর পর শানকে এরকম মজাদার মুডে দেখা গেল। তার সঙ্গে আমরা দেখতে পেয়েছি অভিনেত্রী তৃণা সাহা কে। এছাড়াও ছিলেন গায়িকা জুন ব্যানার্জি, যিনি অনেকদিন পর লাইম লাইটে এলেন।

এছাড়াও ছিলেন গীতিনাট্যকার রাজীব চক্রবর্তী।

এখানে শান নিজে রয়েছেন তার সঙ্গে রয়েছেন তৃণা সাহা। এই মিউজিক ভিডিওতে মূল বক্তব্য হলো দুজনেই ইন্টেরিয়র ডিজাইনার। তবে ছেলেটি অনেক লাজুক এবং মেয়েটি অনেক বেশি খোলামেলা আর মডার্ন। একটি রাজবাড়ী এই ছেলে মেয়েটিকে দায়িত্ব দেয় তাদের পুজো সাজাবার জন্য এবং যেখানে প্রাচ্যের সঙ্গে পাশ্চাত্যের মিলন হবে। এইটা করতে গিয়েই দুজনের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে উঠবে এবং কীভাবে একে অপরের লেগ পুলিং করবে সেটাও এই গানের মাধ্যমে ফুটে উঠবে।

শান জানান যে তিনি ভীষণ এক্সাইটেড। কারণ এটা বাঙালির জন্য তার পুজোর গিফট এবং তিনি আশা করছেন মা দুর্গা তাকে আশীর্বাদ করবেন এই গানটিকে সুপারহিট করিয়ে। তিনি তো গায়ক কিন্তু এই মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করে তার দারুণ লেগেছে বিশেষ করে তৃণার সঙ্গে কাজ করে

 তিনি খুব সন্তুষ্ট।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button