Tollywood

মিঠুন চক্রবর্তী অসুস্থ, পুরনো ছবি পোস্ট দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার ইউটিউবার স্যান্ডি সাহা! মহাগুরুকে নিয়ে ইয়ার্কি করায় রেগে গেলেন নেটিজেনরা

আমাদের জীবনে আমরা তারকাদের ভীষণ কাছ থেকে ভালবাসি। অনেকেই আছেন যারা বিভিন্ন তারকাদের পুজো করেন যেমন মুম্বাইতে অমিতাভ বচ্চনের মন্দির আছে। আবার শাহরুখ খানের মন্নতটা অনেকের কাছে মন্দির। বাংলার তারকাদেরও মানুষ ভীষণ ভালোবাসেন। তাদেরকে এক ঝলক দেখার জন্য পাগলামি করেন সাধারণ মানুষ।

টলিউড এবং বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা হলেন মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী। নিজের চেষ্টায় তিনি বলিউডে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন তারপরে তার টলিউডে আসা। মৃগয়া ছবির জন্য পেয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কার।এরপরে নাচের জন্য বিখ্যাত হওয়া তার ডিসকো ডান্সার যে কী বিখ্যাত সেটা আশা করি বলে দিতে হবে না।

কিছু বছর আগে তিনি রাজনীতিতে যোগ দেন কিন্তু মানুষ তাকে রাজনীতিতে অতটা গ্রহণ করেননি। নিজেদের প্রিয় মহাগুরু কে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত হতে দেখে তারা পছন্দ করেননি। বর্তমানে অবশ্য এখন তিনি রাজনীতির সংশ্রব থেকে অনেকটাই দূরে রয়েছেন কিন্তু তাকে নিয়ে বর্তমান সোশ্যাল মিডিয়ায় যা চলছে তা বলার নয়।

সম্প্রতি ইউটিউবার স্যান্ডি সাহা মিঠুন চক্রবর্তীর একটি অসুস্থ অবস্থায় ছবি দিয়ে ফেসবুকে লেখেন, ‘তাঁকে নিয়ে অনেক মিম হয়েছে, এই আমরাই কখনো বলেছি .. ‘ও মিঠুনদা একটু নাচুন না’ কিংবা ‘জাত গোখরো’ কিংবা ‘নকশাল টু রং দে তু মোহে গেরুয়া’ ইত্যাদি ইত্যাদি কিন্তু এটা ধ্রুব সত্যি যে তিনিই জাতীয়স্তরের বাণিজ্যিক সিনেমায় প্রথম ও একমাত্র বাঙালি সুপারস্টার, তিনি মহাগুরু … আজ তিনি অসুস্থ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আপনার দ্রুত সুস্থতা কামনা করি। তাড়াতাড়ি সেরে উঠুন সুপারস্টার। আপনি ভারতের তথা আমাদের বাঙালীর গর্ব।’

কিন্তু এখানেই ঘটে বিপত্তি। এই ছবিটি পুরনো ছবি।আজ থেকে কয়েক দিন আগে পিঠের ব্যথা হওয়ার জন্য তিনি হাসপাতালে যান এবং ডাক্তারের পরামর্শে তিনি সেখানে রেস্ট নিচ্ছিলেন। বিজেপির নেতা অনুপম হাজরা হাসপাতালে গিয়ে তার আরোগ্য কামনা করেন এবং তার কয়েকটি ছবি তুলে পোস্ট করেন।সেই ছবি আবার নতুন করে ভাইরাল হতে শুরু করে দেয় সোশ্যাল মিডিয়া এবং স্যান্ডি সাহা ঠিক সেই ছবিটি কে নিয়ে এমনভাবে ক্যাপশন দিয়ে পোস্ট করেছেন যাতে মনে হচ্ছে মিঠুন চক্রবর্তী গুরুতর অসুস্থ।

মিঠুনের অনেক অনুরাগী সোশ্যাল মিডিয়ায় স্যান্ডির এরকম কীর্তি দেখে রেগে গিয়েছেন এবং তারা বলছেন যে একজন ইউটিউবারের উচিত ছিল পুরো খোঁজ-খবর নিয়ে পোস্ট করা। কয়েক দিনের পুরনো ছবি বর্তমানে দিয়ে তাকে অসুস্থ বানাবার তো কোন দরকার ছিলনা স্যান্ডির‌। এমনকি স্যান্ডি যে ক্যাপশনটা লিখেছেন সেটিও কারোর থেকে টুকলি করা।এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত স্যান্ডি পোস্টটি ডিলিট করেন তবে পরবর্তীকালে কী হবে তা বলা যাচ্ছে না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button