Tollywood

Konineeca Banerjee: মেরুদণ্ড অস্ত্রপচার হওয়ার পর বোবা হয়ে গেছিলেন, মেয়েকে আর কোলেও নিতে পারবেন না! সহচরীর অসুস্থতার বিবরণ শুনলে কাঁদবেন আপনিও

বাংলা সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেত্রী কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়।তিনি বহুদিন ধরে বাংলা টেলিভিশন জগতে তার অভিনয় দিয়ে মুগ্ধ করছেন দর্শকদের। কিছুদিন আগেই স্টার জলসাতে তার অভিনীত ধারাবাহিক শুরু হয়েছিল “আয় তবে সহচরী”। নারী কেন্দ্রিক ধারাবাহিক হওয়ায় এটিকে দর্শকদের বেশ মনেও ধরেছিল।

তবে ধারাবাহিকটিতে যখন জমজমাটি পর্ব চলছিল তার মধ্যে অভিনেত্রী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসার জন্য তাকে যেতে হয় চেন্নাই। তার পিঠে শিরদাঁড়ায় অস্ত্রোপচার হয়। যার ফলে বেশ কয়েক মাস অভিনেত্রী কে সিরিয়াল থেকে দূরে থাকতে হয়। তবে ধারাবাহিকের সঙ্গে যুক্ত সকলেসহ দর্শকরাও ভেবেছিল কয়েক মাস পর সুস্থ হয়ে আবার ধারাবাহিকে যোগ দেবে কনীনিকা।কিন্তু তার অস্ত্রপচারের পর কিছুটা ভালো থাকলেও পুরোপুরি গলার স্বর এখনো ফেরেনি অভিনেত্রীর।

May be an image of 1 person
চিকিৎসার পর অভিনেত্রী চেন্নাই থেকে বাড়ি ফিরে আসেন এবং পুরোপুরি বিশ্রামে থাকেন ।তারপর থেকেই ভয়েস এবং ফিজিওথেরাপি চলছিল অভিনেত্রীর।

তবে কনীনিকা এতটা গুরুতর অসুস্থ থাকার কারণে ধারাবাহিকটিকে অনেক আগেই শেষ করে দিতে হচ্ছে নির্মাতাদের। তার কারণ মুখ্য চরিত্রে থাকা অভিনেত্রী এতটাই অসুস্থ যে আরও বেশ কিছুদিন তিনি অভিনয় করতে পারবেন না।

May be an image of 3 people, people standing and indoor
তবে আগের থেকে অনেকটাই সুস্থ কনীনিকা, তাই গতকাল তিনি লাইভে এসে বলেন‘আমি ডিপ্রেশনে যায়নি। আজ একটু ভালো করে কথা বলতে পারছি বলে তোমাদের সঙ্গে লাইভে আসা। এর আগে আমার গলা দিয়ে শুধুই হওয়া বেরচ্ছিল… সবে একটা মাস হয়েছে। আশা করি আরও এক-দু’মাসের মধ্যে আমার গলা ফেরত আসবে।’

May be an image of 2 people, people standing and indoor
তিনি আরও বলেন, এখনও বেশ কিছু বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে তাঁকে। পাঁচ মিনিটের বেশি কথা বলা বা যে কোনও ভারী জিনিস তোলা একেবারেই বারণ তাঁর। এমনকী তাঁর মেয়ে কিয়াকেও কোলে নিতে পারবেন না তিনি। তবুও ভেঙে পড়েননি কনীনিকা। চালিয়ে যাচ্ছেন লড়াই। তাঁর কথায়, ‘আমাদের লড়াই চিরন্তন। লড়ব বলেই এই পৃথিবীতে আসা। তাই হেরে গেলে চলবে না।’

তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে তার ভক্তরা খুবই দুশ্চিন্তার মধ্যে ছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার তাড়াতাড়ি সুস্থতা কামনা করছিলেন তারা সকলেই। তাদের উদ্দেশ্যে কনীনিকা বলেন ‘আমাকে আমার কণ্ঠস্বর ফিরে পেতেই হবে। আমার ভিতরে যে স্বর ছিল সেটা ফিরে আসবে এবং আমি তোমাদের কাছে ফিরতে পারব। কাজ নিয়ে ফিরতে পারব। আবার তোমাদের বিনোদন দিতে পারব।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button