Tollywood

Shubhashree-Raj Trolled: ছেলেকে নিয়ে রাজ্-শুভশ্রীর হাতি সাফারি! “হ্যাঁ গো একটুও কষ্ট হচ্ছে না? মনে ব্যাথা লাগছে না নিরীহ পশুটার উপর তোমরা দুজনে চেপে আছো?” পশুদের সঙ্গে এরূপ আচরণ দেখে খচে বোম নেটিজেন

আমরা সাধারণত তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে একটু বেশি কৌতূহল প্রকাশ করি। আর তার জন্যই অনেক তারকারাই তাদের প্রত্যহ রুটিং ব্লগের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরেন। এঁনাদেরই মধ্যে একজন হলেন টলিউডের জনপ্রিয় দম্পতি রাজ চক্রবর্তী এবং শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়। আমরা জানি, সম্প্রতি রাজ চক্রবর্তী এবং শুভশ্রী তাঁদের ছোট্ট ইউভানকে নিয়ে বেড়াতে গিয়েছেন। সেখানে গিয়ে নানান ভিডিও ও ছবি শেয়ার করেছেন তাঁরা।

ছুটির মেজাজে এখন দিন কাটাচ্ছেন রাজ্-শুভশ্রী। ডুয়ার্সের মতো সুন্দর জঙ্গলে ছুটি কাটাতে দেখা গিয়েছে তাঁদের। সেখান থেকেই বেশ কয়েকটি ভিডিও পোস্ট করেন জনপ্রিয় এই দম্পতি। ইউভানকে কোলে নিয়ে হাতির পিঠে চড়ে জঙ্গল ভ্রমণের একটি ভিডিও পোস্ট করেন শুভশ্রী। নেট দুনিয়ায় তাঁদের সেসকল ভিডিও ভালোবাসায় ভরাচ্ছেন নেটিজনেরা।

এরইমধ্যে রাজ-শুভশ্রীর জঙ্গল ভ্রমণের একটি ভিডিও নিয়ে শোরগোল পরে গিয়েছে নেট দুনিয়ায়। বছরের শুরুতে ছেলেকে নিয়ে ডুয়ার্স ভ্যাকেশনে গিয়ে বেশ আনন্দ উপভোগ করছেন রাজ্- শুভশ্রী। একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে চা- বাগানের রিসোর্টের হ্যামোকে শুয়ে আছেন শুভশ্রী, বুকে ইউভান। অন্তরা চৌধুরীর জনপ্রিয় শিশুদের গান,’বুলবুল পাখি ময়না টিয়ে…’ গুনগুন করে গেয়ে ছেলেকে ঘুম পাড়াচ্ছেন শুভশ্রী। ইউভানের এক হাতে খেলনা সাইকেল, অন্য হাত মুখে। মা- ছেলের আদুরে ও মিষ্টি মুহূর্ত শেয়ার হতেই তা নজর কাড়ছে সকলের।

অন্য একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মা হাতি তার সন্তানকে দুধ খাওয়াচ্ছে, আর ইউভান ও শুভশ্রী তাদের মাথায় হাত বুলিয়ে আদর করছে। দুটি ভিডিওতেই কমেন্ট করেছেন টলিউড অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক। আবার অন্যদিকে আরেকটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, হাতির পিঠে চেপে রাজ্- শুভশ্রী সাথে ইউভেনকে নিয়ে জঙ্গল ভ্রমণ করতে। উক্ত ভিডিওতে অনেকেই ভালোবাসা দিলেও কিছুজন এর বিরুদ্ধে কথা বলেছেন।

নেটিজনেদের মনে হয়েছে, এই হাতিদের এরমভাবে কষ্ট দেওয়া বন্ধ করতে হবে। এতজন মিলে হাতির পিঠে চাপা উচিত না। কেউ কেউ বলেছেন, রাজ্-শুভশ্রী পশুপ্রেমী, তা সত্বেও তারাও কিভাবে এই কাজ করতে পারলো? তাঁদের উচিত হয়নি এই নিরীহ হাতিটির পিঠে স্বপরিবারে ওঠা। এটা কোনো আনন্দ উপভোগ করা নয়, এটা পশুদের কষ্ট দেওয়া।

এদের মধ্যে একজন লিখেছেন, “As much as this is fun , it’s also animal cruelty. High time these entertainments should be stopped। ” অন্য আরেকজন লিখেছেন, “হ্যাঁগো রাজদা, তোমার একটুও কষ্ট হচ্ছে না? মনে ব্যাথা লাগছে না নিরীহ পশুটার উপর তোমরা দুজনে চেপে আছো?” ‘পশুপ্রেমী হলে কখনো হাতির পিঠে উঠতো না’ ওপর একজন লিখেছে, “সপরিবারে যখন হাতির পিঠে উঠে নিজেরা আনন্দ উপভোগ করেন তখন কি একবারের জন্যও ভাবেন যে হাতিটার কত কষ্ট হচ্ছে ৷ এটা বন্ধ করা দরকার সকলের জন্য “৷

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button