Tollywood

অন্যায় ভাবে ছোট দাদুকে বাদ দেওয়া হয়েছে এই পথ থেকে, আর কোনদিনও এই ধারাবাহিকে ফিরবেন না আবীরের বাবা ফাল্গুনী চ্যাটার্জী! ‘ছোট দাদু কে খুব মিস করি’, মন খারাপ নেটিজেনদের

জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো আমাদের এই পথ যদি না শেষ হয়।দীর্ঘ এক বছর তিন মাস ধরে চলছে এই ধারাবাহিক এবং ইতিমধ্যে মানুষের মন জয় করে নিয়েছে টুকাই বাবু এবং উর্মির জুটি। তবে এর মধ্যেই ছয়টি চরিত্রের মুখ বদল হয়ে গেছে, এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল সমালোচনা হয়েছে।এখন এরকম কথা উঠেছে যে হয়তো দেখা যাবে কোন দিন টুকাই আর উর্মিকেই পাল্টে দিয়েছেন নির্মাতারা।

কিন্তু এবার জানা গেল বিস্ফোরক তথ্য। বহুদিন ধরে আমরা ছোট দাদু আর ছোট ঠাম্মিকে দেখতে পাচ্ছি না। মাঝে জেনেছিলাম যে ছোট ঠাম্মি অর্থাৎ মানসী সিনহা নিজের প্রথম সিনেমা পরিচালনা করার জন্য ব্রেক নিয়েছেন। আমার ধূলোকণা ধারাবাহিকে অভিনয় করার জন্য ফাল্গুনী চ্যাটার্জী অর্থাৎ ছোট দাদু বিরতিতে রয়েছেন। কিন্তু এখন জানা যাচ্ছে অন্য ব্যাপার।

কিছুদিন আগে মুমু দিদির মা অর্থাৎ সুচন্দ্রা ব্যানার্জির জন্মদিন সেলিব্রেশন করতে ভারত লক্ষ্মী স্টুডিওতে এসেছিলেন মানসী সিনহা এবং ফাল্গুনী চ্যাটার্জী।তখন অনেকেই ভেবেছিলেন যে এবার বোধহয় তাদের দেখা যাবে ধারাবাহিকে কিন্তু এর পরেও তাদেরকে আমরা দেখতে পাচ্ছি না।এবারের কারণ জানালেন অভিনেতা ফাল্গুনী চ্যাটার্জী এবং ফেসবুকে যেভাবে তার ক্ষোভ ঝরে পড়লো সেটা দেখে বোঝা যাচ্ছে যে কিছু একটা গন্ডগোল হয়েছে।

তাকে এক ভক্ত প্রশ্ন করেছিলো যে আপনি আবার কবে ফিরবেন এই পথ যদি না শেষ হয় ধারাবাহিকে? তখন ফাল্গুনী চ্যাটার্জি যে উত্তরটা সর্বসমক্ষে লিখেছেন তা দেখে বোঝা যাচ্ছে যে সিরিয়াল নির্মাতাদের সঙ্গে তার গন্ডগোল হয়েছে। তিনি লিখেছেন যে বিগত আড়াই মাস ধরে এই প্রশ্নের উত্তর না পেয়ে আমিও অন্ধকারে।আমি তো ভেবেই পাইনি আপনার প্রতিদিন উপস্থিতির পর সরকার বাড়ির মতো আদর্শ যৌথ পরিবারের দুই গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র কী করে কোন কারণ না দেখিয়ে ভ্যানিশ হয়ে যেতে পারে? গল্পের বিশ্বাসযোগ্যতা কি তাতে মজবুত হয়? জানিনা, আমি সত্যিই জানিনা ভাই।

তার এই উত্তর দিকে সকলেই চমকে গেছেন। হঠাৎ করে ছোট দাদুর মত গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রকে বিনা কারণ ছাড়া সরিয়ে নেওয়ার মানে কেউ বুঝতে পারছে না। কিছুদিন আগে পর্ব পরিচালক কৃশ বোসও সরে গেলেন। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি বেশ জটিল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button