Tollywood

অপরাজিত নিয়ে নতুন বিতর্ক!তথ্য বিকৃতি করা হয়েছে, ক্ষোভে ফেটে পড়লেন পথের পাঁচালীর দুর্গার মেয়ে!

বর্তমানে টলিউডে সবথেকে বেশি আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে যে সিনেমাটিকে কেন্দ্র করে তা হল অনীক দত্ত পরিচালিত অপরাজিত। “পথের পাঁচালী” সিনেমা তৈরির নেপথ্যের কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে এই সিনেমার গল্প। আর বাঙালির কাছে সত্যজিৎ রায় মানেই আবেগ। তাই তাঁকে পর্দায় দেখা যাবে আর সিনেমা হিট হবে না, আলোচনা হবে না এমনটা তো হতেই পারে না।

বাঙালি দর্শকদের কাছ থেকে বিপুল সাড়া পেয়েছে এই সিনেমা। আর এর অন্যতম কারণ হলো সত্যজিৎ রায়ের সঙ্গে সেই চরিত্রে অর্থাৎ অপরাজিত রায় চরিত্রে অভিনয় করা নায়ক জিতু কামালের মুখের মিল। সেই সাদা-কালো ভালোবাসা, পর্দায় অপু-দুর্গার রেলগাড়ি দেখা ঠিক যেনো আবার জীবন্ত হয়ে ধরা দিয়েছে।

তবে এসবের মাঝেও অন্য কারণে কটাক্ষের শিকার হলো এই সিনেমা। সিনেমা নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন অভিনেত্রী উমা দাশগুপ্তর মেয়ে শ্রীময়ী সেন রাম। উমাকে দেখা গিয়েছিল সত্যজিৎ রায়ের পথের পাঁচালীতে দুর্গা চরিত্রটিতে। তাঁর মেয়ের অভিযোগ অপরাজিত ছবির একটি দৃশ্যকে কেন্দ্র করে উঠেছে।

ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন নিয়মিত স্কুল থিয়েটারে অভিনয় করতেন। স্কুলের সহ প্রধান শিক্ষিকা ছিলেন সত্যজিৎ রায়ের পরিচিত। সত্যজিৎ রায় তাঁকে অনুরোধ করেন একজন অভিনেত্রী খুঁজে দিতে দুর্গা চরিত্রের জন্য। তারপর একটি বৈঠক হয় যেখানে সর্বজয়া চরিত্রে অভিনয় করা করুণা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শ্রীময়ীর মায়ের মিল খুঁজে পান সত্যজিৎ রায়। তারপরের ঘটনা বহু পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। দাদু রক্ষণশীল ছিলেন তাই বাড়ির মেয়ে সিনেমায় অভিনয় করবে সেটা প্রথমে ভালো চোখে দেখা হয়নি।

এরপর দাদুর কাছ থেকে অনুমতি মেলে কিন্তু দাদু সত্যজিৎ রায়ের থেকে একটা পয়সাও এর জন্য নিতে চাননি। কিন্তু এই ডকু ফিচার অর্থাৎ অপরাজিত সিনেমায় দেখানো হয়েছে অপরাজিত রায়ের বাড়িতে একটি মেয়েকে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রথমে মেয়েটিকে পছন্দ হয় না তাঁর। পরে অপরাজিত
রায়ের স্ত্রী বিমালা মেয়েটিকে শাড়ি পরিয়ে সামনে আনলে দুর্গা হিসেবে মেয়েটিকে বেছে নেন অপরাজিত।

এই ছোট্ট তথ্য হয়তো সবার কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয় অন্তত এত বড় মাপের একটি সিনেমার ক্ষেত্রে। কিন্তু শ্রীময়ীর মনে হয়েছে পরিচালকের আরো একটু বেশি গবেষণা করা উচিত ছিল। এই বিষয় প্রতিক্রিয়া জানার জন্য পরিচালক অনীক দত্তর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু উত্তর পাওয়া যায়নি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button