Tollywood

‘তিরিশ বছর ধরে বুম্বা নাকি একা ইন্ডাস্ট্রি টানছে, তাহলে আমি,মিঠুন,তাপস,অভিষেক কি পার্শ্বচরিত্র?’, রেগে লাল চিরঞ্জিত চক্রবর্তী!

কথায় বলে যে, বুম্বাদাই হল বাংলা ইন্ডাস্ট্রি। ক্যারিয়ারে প্রায় 400 ছবি করেছেন প্রসেনজিৎ, তার মধ্যে অধিকাংশই হিট। আর পরবর্তীকালে বেছে বেছে ছবি করছেন তাই এখনো নিজের প্রাসঙ্গিকতা বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে ধরে রেখেছেন বুম্বাদা।‌ দু’মাস আগে অভিষেক চ্যাটার্জীর মৃত্যুর পর প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এর দিকে আঙুল উঠেছিল,তিনিই নাকি একের পর এক ছবি থেকে বাদ দিয়েছিলেন অভিষেককে আর সেই জন্য কষ্ট ডুবেছিলেন অভিষেক। যদিও সেই অভিযোগ হওয়া কোন পাল্টা মন্তব্য করেননি প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জী।


তবে এবার পুরনো একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা গেছে চিরঞ্জিত চক্রবর্তী প্রসেনজিৎ এর বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন। বহু বছর আগে জি বাংলায় একটি চ্যাট শো হত যারা সঞ্চালনা করতেন শাশ্বত চ্যাটার্জি। সেই শো’তে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির তারকারা আসতেন এবং অনেক গোপন কথা ফাঁস হত। একবার অতিথি হয়ে গিয়েছিলেন চিরঞ্জিৎ চক্রবর্তী। টলিউড নিয়ে সঞ্চালক শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের বাউন্সার‌ প্রশ্ন ছিল,বাংলা বিনোদন দুনিয়া বলে, একটা দীর্ঘ সময় প্রসেনজিৎ একাই টলিউডকে টেনে নিয়ে গিয়েছেন। চিরঞ্জিৎ কী বলেন?


জবাবে বরাবরের স্পষ্টভাষী বিধায়ক-তারকার পাল্টা প্রশ্ন, ‘‘৩০ বছর। তখন মিঠুন ছিলেন না? ভিক্টর ছিলেন না? তাপস, অভিষেক, আমি ছিলাম না? আমরা কি তা হলে পার্শ্ব অভিনেতা ছিলাম?’’

তবে তার পরে যে কথাগুলো বলেন সেই কথাগুলো শুনলে বোঝা যাবে যে তিনি অনেকটা সংযত হয়ে কথা বলছেন।তিনি পাল্টা শাশ্বতকে প্রশ্ন করেন যে, ‘বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না’র ‘রাজকুমার’— ‘‘তা হলে কী করে একা ৩০ বছর টানল?’’

পরে অবশ্য অভিনেতার ব্যাখ্যা, ‘আমিই ইন্ডাস্ট্রি’ এই সংলাপ সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘অটোগ্রাফ’ ছবির। ছবি এবং ছবির সংলাপ মারাত্মক জনপ্রিয়। ছবিতে প্রসেনজিৎ ওরফে ‘অরুণ চট্টোপাধ্যায়’ প্রথম ‘ইন্ডাস্ট্রি’ শব্দটি উচ্চারণ করেছিলেন। পরে সেটি লোকের মুখে মুখে ফেরে। পর্দার ‘জাতিস্মর’-এর প্রতিভা নিয়েও কোনও সন্দেহ নেই বর্ষীয়ান অভিনেতার।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button