একাধিক বাংলা ধারাবাহিক হিন্দিতে তৈরি হচ্ছে, আসল কারণটা কী জানেন? শুনলেই চমকাবেন

অতীতে তামিল জনপ্রিয় সিনেমা থেকে বাংলায় রিমেক হওয়ার একাধিক নিদর্শন দেখতে পাওয়া গেছে টলিউডে। কিন্তু বাংলা ধারাবাহিক থেকে একাধিকবার সিরিয়াল অন্যান্য ভাষায় রূপান্তর হওয়ার নিদর্শন!! সম্প্রতি এমনই ঘটনা ঘটছে ধারাবাহিক গুলির মধ্যে।

বাংলা জনপ্রিয় ধারাবাহিক শ্রীময়ী’র হিন্দি রিমেক ‘অনুপমা’ এই মুহূর্তে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে।একই ধারা বজায় রেখে তালিকায় উপর দিকেই রয়েছে ‘ইষ্টিকুটুম’ এবং ‘কুসুমদোলা’-র হিন্দি রিমেক ‘ইমলি’ ও ‘গুম হ্যায় কিসি কে প্যায়ার মেঁ’। ‘কৃষ্ণকলি’-র তেলুগু রিমেক ‘কৃষ্ণা তুলাসি’-ও জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

maxresdefault

এত সাফল্যের কারণেই কি চাহিদা বাংলা ধারাবাহিক গুলির?ইতিমধ্যেই কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে ‘দীপ জ্বেলে যাই’-এর হিন্দি, ‘খড়কুটো’র হিন্দি, তামিল, ‘কৃষ্ণকলি’র ভোজপুরি, ‘মিঠাই’-এর তামিল ভাষান্তরের। শোনা যাচ্ছে ‘তিতলি’ও হাঁটতে চলেছে একই রাস্তায়।krishnakali

 

ম্যাজিক মোমেন্টস প্রযোজনা থেকেই মূলত রিমেক ধারাবাহিক গুলি চলছে। প্রযোজক শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, “ছোট পর্দা বা ওটিটি দু’জায়গাতেই এখন দর্শক ঝুঁকছেন আঞ্চলিক স্বাদে। স্বাভাবিক ভাবেই হিন্দি চ্যানেলগুলোতে বিভিন্ন আঞ্চলিক ভাষার ধারাবাহিকের চাহিদা বাড়ছে। একসঙ্গে এতগুলো বাংলা ধারাবাহিক রিমেকের নেপথ্যেও সেটাই কারণ। ভাল গল্পের টান তো আছেই। একই কারণে বিভিন্ন দক্ষিণী ভাষা, মরাঠি বা ওড়িয়া ধারাবাহিকেরও রিমেক হচ্ছে হিন্দি বা অন্য ভাষায়।”

khorkuto

অন্যদিকে প্রযোজনা সংস্থা ‘ব্লুজ’-এর কর্ণধার স্নেহাশিস চক্রবর্তী বাঙালি গল্পের বৈচিত্রে ওপর জোর দিতে চান। তাঁর মতে, “বাংলা ধারাবাহিকের গল্পে বুনোট, ঘটনাপ্রবাহ, চরিত্রের এত বৈচিত্র এবং প্লটের এত ওঠাপড়া আসলে অন্য অনেক ভাষার ধারাবাহিকেই নেই। ফলে বাংলার গল্প দর্শককে অনেক বেশি টেনে রাখে। সে কারণেই তা এখানকার বিভিন্ন হরেক ভাষায় রিমেক হয়। গত পাঁচ বছরে আমাদের বেশ কিছু ধারাবাহিক রিমেক হয়েছে। হিন্দি তো বটেই, দক্ষিণী ভাষাতেও।”

Zee Bangla MIthai to be Remake on Tamil and Odia Language soon

অ্যাক্রোপলিস কর্ণধার স্নিগ্ধা বসু জানান “ছোট পর্দার ধারাবাহিকের ক্ষেত্রে এই আদানপ্রদানটা পারস্পরিক। শুধু যে বাংলা গল্পই রিমেক হচ্ছে এমন নয়। এর আগে একাধিক হিন্দি বা দক্ষিণী ভাষার ধারাবাহিক রিমেক হয়েছে বাংলায়। ইদানীং রিমেক-ক্ষেত্রে বাংলা ধারাবাহিকের পাল্লা ভারী। হয়তো দর্শক এখানকার গল্প বেশি পছন্দ করছেন। সেটা নিঃসন্দেহে গর্বের জায়গা।”

স্বাভাবিক ভাবেই বাংলা। ধারাবাহিকের ক্ষেত্রে বাইরে যে প্রভাব বাড়ছে সে নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

Back to top button