Entertainment

‘আমার পাড়ার চম্পা ঠাকুমাকে শ্রুতি দাসের থেকে ভালো দেখতে’, নেটিজেনের তীব্র কটাক্ষের শিকার শ্রুতি, পাল্টা জবাব দিয়ে ট্রোলারকে উচিত শিক্ষা দিলেন ত্রিনয়নী

বর্তমান দিনে সমাজে বিভিন্ন শারীরিক দিক নিয়ে ভীষণভাবে ট্রোলিং করা হয়।এটা আগেও ছিল তবে বর্তমানে ডিজিটাল যুগ চলে আসায় এখন এই অপমানগুলো ভার্চুয়ালি চলে। সাধারণ মানুষ তো পাড়া-প্রতিবেশী এবং বাকি আত্মীয়দের কাছে অপমানের শিকার হন তাদের বিভিন্ন শারীরিক দিক যেমন গায়ের রং ওজন উচ্চতা এই সবকিছু নিয়ে কিন্তু সেলিব্রিটিরা অত্যধিক মাত্রায় অপমানের শিকার হন সোশ্যাল মিডিয়ায়।কিছু সেলিব্রিটি ভাবে গোটা বিষয়টাকে পাত্তা দেবেন না আবার কিছু সেলিব্রিটি মাঝেমাঝেই পাল্টা জবাব দেন। আজ সকালে যেমন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস এরকম ভাবেই এক নেটিজেন কে শিক্ষা দিলেন সকাল সকাল।

অভিনেত্রী শ্রুতি দাস কে আমরা জেনেছি জি বাংলার ধারাবাহিক ত্রিনয়নী থেকে তারপরে তিনি স্টার জলসার দেশের মাটিতে অভিনয় করেন কিন্তু বর্তমানে তাকে আমরা কোন ধারাবাহিকে দেখতে পাচ্ছি না।অনেকের ধারণা তিনি গায়ের রংয়ের জন্য কাজ পাচ্ছেন না যদিও স্ক্রিপ্ট পছন্দ না হওয়ায় তিনি এখন স্বেচ্ছায় ধারাবাহিকে কাজ করছেন না তবে মিউজিক ভিডিওর কাজ এবং অভিনয় শেখানোর কাজ তিনি করে যাচ্ছেন। মানুষ একটা কথা ভুলে যাচ্ছে যে তার বাগদত্ত স্বর্ণেন্দু সমাদ্দার একজন বড়মাপের সিরিয়াল পরিচালক। শ্রুতি চাইলেই তার হাত ধরে কোনো সিরিয়ালে লিড নিয়ে ফিরে আসতে পারতো কিন্তু শ্রুতি সেরকম নয়।তিনি বরাবর সৎপথে কাজ করেছেন এবং ভবিষ্যতেও তাই করবেন আর এই কথার প্রতিফলন সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টেই দেখা যায়।

তিনি কিছুক্ষণ আগে ফেসবুক স্টোরিতে দুটো স্ক্রিনশট শেয়ার করেছেন যেখানে আমরা দেখতে পাচ্ছি আজ থেকে তিন বছর আগে একজন মজা করে পোস্ট দিয়েছিলেন যে ত্রিনয়নী কি আমাকে এই জিনিসের ভবিষ্যৎ বলে দিতে পারবে? তখন শুভঙ্করের নামে এক ব্যক্তি সেখানে কমেন্ট করেন যে তার পাড়ার চম্পা ঠাকুমাকে শ্রুতির থেকে ভালো দেখতে। অত্যন্ত অশালীন একটি গালিও সঙ্গে দেন।

খুব সম্ভবত শ্রুতির আজ চোখে পড়ে কমেন্টটি এবং তিনি একদম ধুয়ে রেখে দিয়েছেন সেই শুভঙ্কর দে’কে। স্পষ্ট লিখে দিয়েছেন যে দেখতে ভালো নয় বলেই আপনার বন্ধু আমাকে নিয়ে স্ট্যাটাস দেয় আর আপনার পাড়ার চম্পা ঠাকুমাকে কেউ চেনে না।আপনার যেন কন্যা সন্তান না হয় এটাই প্রার্থনা করি কারণ সে যদি তথাকথিত সুন্দরী এবং ফর্সা না হয় তাহলে তথাকথিত একজন ভয়ংকর দে ভবিষ্যতে তাকে এই ভাবেই অপমান করবে যেভাবে আপনি আমায় করলেন।

শ্রুতির এই সাহসের প্রশংসা করছেন নেটিজেনরা এবং বলছেন যে শুধুমাত্র গায়ের রঙের জন্য বারবার শ্রুতিকে অপমানিত হতে হচ্ছে, এটা কি 2022 সাল? যেখানে গায়ের রং দিয়ে একটা মানুষের সৌন্দর্য মাপা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button