Entertainment

থুঃপঙ্কর হাগচী,বুড়ো অসুস্থ পাগল’ কেকে’কে কটাক্ষ বিতর্কে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত বাঙালি গায়ক রূপঙ্কর বাগচীকে ধুয়ে দিলেন ইউটিউবার স্যান্ডি সাহা!’এই প্রথম তোমার কোনো কাজ ভালো লাগলো’, বলছে অধিকাংশ নেটিজেনরা

মন ভালো নেই বাঙালির বিশেষ করে ২০০০ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত যারা বয়ঃসন্ধির সময়টা কাটিয়ে এসেছে পরশু দিন রাত থেকে তাদের মন খুব খারাপ। ফোনের প্লেলিস্টে বারবার বেজে উঠেছে হাম রহে ইয়া না রহে কাল ইয়াদ আয়েঙ্গে ইয়ে পল। আকুল করা এই গানের স্রষ্টা বলিউড গায়ক বলিউড গায়ক কেকে পরশুদিন রাতে কলকাতার বুকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পাড়ি দিয়েছেন চিরঘুমের দেশে। ঘটনার আকস্মিকতায় হতচকিত কলকাতাবাসী। তাদের শহরে এসে সুরের জাদুকরের সুরটাই থেমে যাবে এটা তারা কোনদিন কল্পনাও করেননি। এর জন্য অবশ্যই কলেজ কর্তৃপক্ষ এবং নজরুল মঞ্চের কর্তাব্যক্তিরা দায়ী অনেকটাই। বন্ধ এসি,অতিরিক্ত লোক, চড়া আলো, সব মিলিয়ে আর সহ্য করতে পারেননি মানুষটা। ধমনীতে তার 70% ব্লকেজ ছিল অথচ তিনি জানতেনইনা।

কিন্তু বাঙ্গালীদের মধ্যে বিতর্ক টা আরো বেশি হচ্ছে তার কারণ হলেন আরেক গায়ক যিনি জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত।কেকের মৃত্যুর কয়েক ঘন্টা আগে তিনি একটি ফেসবুক লাইক করেন এবং সেখানে তিনি অদ্ভুত কর্কশ স্বরে বলেন যে, ‘কে? কেকেকেকেকেকেকেকে… হু ইজ দিস কে ম্যান? আমি অনুপম ইমন রুপম (তিনি আরো অনেক জনের নাম নিয়েছিলেন, আমরা সেগুলো আর লিখলাম না) কেকের থেকে অনেক ভাল গাই কিন্তু আমাদের গান শুনে আপনাদের উত্তেজনা হয় না কেন বলুন তো?’ রূপঙ্কর বাগচীর কথার ছত্রে ছত্রে তখন উপচে পড়ছে পরশ্রীকাতরতা এবং ঈর্ষা।বাঙালি স্তম্ভিত এবং যারা কেকের গানের ভক্ত তারা তখন থেকেই সমালোচনা শুরু করে দিয়েছিলেন রুপংকরের। কিন্তু তার কয়েক ঘণ্টা পরেই যে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে যাবে সেটা রূপঙ্কর বাগচী নিজেও আঁচ করতে পারেননি।তাই কেকে’র মৃত্যুর পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো তুলনা করা হচ্ছে রূপঙ্কর বাগচীকে।

এবার সেই আগুনে ঘি ঢেলে দিলেন ইউটিউবার স্যান্ডি সাহা। তিনি গত পরশু রুপংকরের পোস্টে প্রচুর কমেন্ট করেছিলেন।সেখানে রুপংকরের মিও আমোরে গান গাওয়ার ভিডিওও পোস্ট করেছিলেন। বলে দিয়েছিলেন যে তিনি আসছেন রুপংকরের ক্লাস নিতে।

আজ কিছুক্ষণ আগে সেই ভিডিও চলে এলো তার ফেসবুক পেজ থেকে। যেখানে তিনি রূপঙ্করকে বুড়ো অসুস্থ পাগল বলে কটাক্ষ করেছেন।রূপঙ্করের কতগুলো ভিডিও তুলে ধরেছেন তিনি যেখানে রূপঙ্করের চরিত্রের বাজে দিকগুলো ফুটে উঠেছে। আর তার এই ভিডিও দেখে অধিকাংশ নেটিজেন বলছে যে, ‘তোমার প্রথম কোন কাজ আমাদের ভালো লাগলো’। ভিডিও এই মুহূর্তে সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button