Entertainment

নিজেই স্টোররুমে খড়ির সঙ্গে শুতে এলো জেদ করে, তারপর খড়ির উপর ধুপ করে পড়ে গিয়ে কোমরে ব্যথা বাঁধালো ঋদ্ধি!জিজুর প্রেম দেখে তো দর্শকদের আর হাসি ধরছে না

বর্তমানের বাংলার সবচেয়ে জনপ্রিয় ধারাবাহিক হল গাঁটছড়া। এই সিরিয়াল শুরু হয়েছে পাঁচ মাস মত হয়েছে কিন্তু এর মধ্যেই দর্শকদের মনে পাকাপাকিভাবে জায়গা করে নিয়েছে। সম্প্রতি যে এপিসোড গুলো দেখানো হচ্ছে সিরিয়ালে সেগুলো তো দুর্ধর্ষ।খড়ি এবং ঋদ্ধিমানের মধ্যে কেমিস্ট্রিটা ভালোই জমে উঠেছে বিশেষ করে ঋদ্ধিমান তো এখন ধীরে ধীরে প্রেমে পড়ে গেছে খড়ির।

খড়ির গুণমুগ্ধ অনুরাগী তার জন্য ফুল এনেছে দেখে রাগে গা জ্বলে গেছে ঋদ্ধিমানের।সেও বউকে ফুল দেবে বলে নিয়ে এসেছে যদিও অহংকারী ঋদ্ধিমান নিজের ব্যবসায়ী ইমেজটা তো বউয়ের সামনে নষ্ট করতে পারে না তাই সোজা বলে দিয়েছে রাস্তায় একজন গরীব দুঃখী ফুল বিক্রি করছিল, তাকে দেখে ঋদ্ধিমান এর কষ্ট হয়েছে তাই সে ফুল কিনে নিয়ে এসে খড়িকে দিয়েছে। এরকম ছোট ছোট মুহূর্ত তৈরি করে গল্পের লেখিকা দর্শকদের প্রায় রোজ চমক দিচ্ছেন।।

আজকের এপিসোড তো সেরা হবে। এবার ঋদ্ধিমান বায়না ধরেছে স্টোর রুমে খড়ির সঙ্গে থাকবে সে। খড়ি তো সেটা কিছুতেই মেনে নেবে না সে বারবার বলছে আপনি নিজের ঘরে গিয়ে শুয়ে পড়ুন ঋদ্ধিমান বাবু কিন্তু ঋদ্ধির জেদ সে বউয়ের সঙ্গে এক ঘরেই থাকবে যদি না খড়ি ঋদ্ধিমানের ঘরে গিয়ে তার সঙ্গে থাকে।তাই বাধ্য হয়ে খড়ি মাটিতে শুয়ে পড়ে আর ছোট্ট খাটে শুতে বাধ্য হয় ঋদ্ধিমান তবু সে স্টোর রুম ছাড়েনি।

তারপরে দেখা যায় নাড়াচাড়া করতে গিয়ে ঋদ্ধিমান পড়ে গেছে খড়ির পর আর খড়ি ভয় পেয়ে বাবাগো বলে চিৎকার করে উঠে পড়ে।পড়ে গিয়ে ঋদ্ধিমানের কোমরে লেগেছে।সে ব্যথায় কাতরাচ্ছে আর খড়ি তখন বলছে যে বেশ হয়েছে। কে বলেছিল আমার ঘরে শুতে? সবকিছু মিলিয়ে দুজনের খুনসুটি আবার শুরু হয়ে গেছে।

দর্শকরা চাইছেন এভাবেই দুজনে দুজনের জীবনে জায়গা করে নিক। দুজনেই মনের দিক থেকে খুব ভালো। ঋদ্ধি আর খড়ির ভালোভাবে মিল দেখালে দর্শকদের থেকে বেশি খুশি আর কেউ হবে না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button