Entertainment

Nita Ambani: যেখানে এত মানুষ খেতে পায় না সেখানে নীতা আম্বানির একটা লিপস্টিকের দামে কিনতে পারবেন গোটা বাংলো! দাম শুনলে বেড়ে যাবে হার্টবিট

ভারতের তো বটেই বিশ্বের অন্যতম ধনী ব্যক্তি হলে মুকেশ আম্বানি। তাই স্বাভাবিকভাবে তার পরিবার যে একটি বিলাসবহুল জীবনযাপন করবে তা সকলেরই জানা। রাজপ্রাসাদের মতো বাড়ি থেকে শুরু করে লাক্সারি একাধিক গাড়ি ব্র্যান্ডেড জামাকাপড় সাজসজ্জার সামগ্রী সবকিছুই আম্বানি পরিবার দামি ব্যবহার করে। তাই তাদের জীবন যাপন নিয়ে চর্চা প্রায় সময় লেগে থাকে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

গত কয়েকদিন আগে মুকেশ ইবিং নীতা আম্বানির ছোট ছেলের বিয়ে নিয়ে নানারকম চর্চা হতে দেখা গিয়েছিল। তারপর তাদের পরিবারের পরিচারিকাদের মাসিক বেতন কত তাই নিয়েও নানা রকম চর্চা হতে দেখা গিয়েছিল। কিন্তু সে সব ছেড়ে এবার চর্চার পালা মুকেশ-পত্নীর সাজসজ্জার সামগ্রীর। সম্প্রতি জানা গিয়েছে, নীতা আম্বানি যে লিপস্টিক ব্যবহার করেন তার মূল্য। যা শুনে সাধারণ মানুষ হা হয়ে যাবে ।

বর্তমানে এমন মহিলা খুঁজে পাওয়া কঠিন, যিনি লিপস্টিক লাগাতে পছন্দ করেন না। আর সেইভাবে নীতাও ব্যতিক্রম নন। কোথাও বেরনোর জন্য হোক বা কোনও অনুষ্ঠানে যাওয়া হোক- লিপস্টিক লাগিয়ে সেজে ওঠেন তিনি। তবে সাধারণ মানুষদের মতো কয়েকশো বা কয়েক হাজার টাকার লিপস্টিক ব্যবহার করেন না মুকেশ পত্নী। তাঁর লিপস্টিকের দামে কিনে ফেলা যাবে গোটা একটা বাংলো।

একটি নামী সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে অনুযায়ী, তিনি বাজারে বিক্রি হওয়া কোনও সাধারণ লিপস্টিক কেনেন না। বরং তিনি বিশেষভাবে অর্ডার দিয়ে নিজের লিপস্টিক তৈরি করেন। তার লিপস্টিকে লাগানো থাকে সোনা এবং হীরের আস্তরণ। আর এর কারণেই নীতার একটি লিপস্টিকের দাম ৩৯ লাখেরও বেশি।

যতদূর জানা যায়, নীতার মতো এত দামি লিপস্টিক বলিউডের নামী অভিনেত্রীরাও ব্যবহার করেন না। এছাড়া সোনা এবং হীরের আস্তরণ থাকার সাথে তার লিপস্টিকের রঙও এক্সক্লুসিভ । নীতা নাকি এমনই লিপস্টিক ব্যবহার করেন যেগুলির রঙ শুধুমাত্র তাঁর কাছেই রয়েছে।

প্রসঙ্গত, নীতার মেকআপ বক্সে নানান রঙের বহুমূল্য লিপস্টিক থাকে। হালকা রঙের ন্যুড লিপস্টিক থেকে শুরু করে গাঢ় রঙের লিপস্টিক। তবে তিনি সাধারণত কোথাও যাওয়ার হলে ন্যুড রঙ কিংবা বাদামি রঙের লিপস্টিক পরেন। অপরদিকে তিনি কোনও অনুষ্ঠানে গেলে লাল কিংবা মেরুন লিপস্টিক পরতে পছন্দ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button