Entertainment

সাধারণতন্ত্র দিবসে ভারতের ‘প্রথম জাতীয় সঙ্গীত’ শেয়ার করে নেটিজেনদের রোষের মুখে কঙ্গনা, নেতাজিকে নিয়ে ইয়ার্কি করায় অভিনেত্রীকে বিদ্রুপ নেটবাসীর 

বিতর্ক যেখানে কঙ্গনা সেখানে। নানান সময় নিজের নানান কার্যকলাপের কারণে নানান বিতর্কে জড়ান কঙ্গনা রানাওয়াত। নিজের নানান মন্তব্যের কারণে তিনি একাধিকবার ট্রোল হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তিনি মাঝেমধ্যেই নেট মাধ্যমে এমন কিছু শেয়ার করেন যার জেরে তিনি বিতর্কে জড়ান।

কিন্তু এসবে থোড়াই কেয়ার করেন অভিনেত্রী। তিনি নিজের কাজকর্ম চালিয়েই যান। সম্প্রতি ফের একটি ভিডিও শেয়ার করে বিতর্কে জড়ালেন কঙ্গনা। সাধারণতন্ত্র দিবস উপলক্ষ্যে তিনি একটি অদেখা ভিডিও শেয়ার করেছেন ইনস্টাগ্রামে যা নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এই ভিডিওর গানটিকেই দেশের প্রথম জাতীয় সঙ্গীত বলে দাবী করেছেন কঙ্গনা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Kangana Ranaut (@kanganaranaut)

এটি একটি সাদা-কালো ভিডিও। ৩ মিনিট ১৬ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি শুরু হয় একটি লাল পতাকা দিয়ে। এরপর এতে নানান ভিজুয়াল দেখা যায় ও গানটি শোনা যায়। এই পোস্টের সঙ্গে কঙ্গনার ক্যাপশন দেখেই বেশ অবাক হয়েছেন নেটিজেনরা।

এই ভিডিও শেয়ার করে কঙ্গনা ক্যাপশনে লেখেন, “আমাদের প্রথম জাতীয় সঙ্গীত। আমাদের সকল দেশবাসীকে প্রজাতন্ত্র দিবসের অগ্রিম শুভেচ্ছা”।

তাঁর এই পোস্টে নানান নেটিজেনরা নানান প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। কেউ কেউ কঙ্গনার প্রশংসা করলেও, কেউ কেউ আবার তাঁকে বিদ্রুপ করতেও ছাড়েন নি।

তাঁর এই পোস্টে একজন কমেন্ট করে লিখেছেন, “আমার প্রিয় দিদি এটা ভুল তথ্য। আমাদের প্রথম জাতীয় সঙ্গীত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছেন”। তাঁর এই মন্তব্যেই আবার অন্য একজন নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এবং উইকিপিডিয়ার একটি লিঙ্ক শেয়ার করে বলেছেন, “আগে কিছু তথ্য সংগ্রহ করুন। আমার কাছে আপনার চেয়ে বেশি তথ্য আছে”।

কেউ আবার কঙ্গনার এই পোস্টে কমেন্ট করে লিখেছেন, “কী ফালতু। মণিকর্ণিকা মুক্তির তিন বছর হয়ে গিয়েছে এবং কোনও ভালো রিল ভাগ করার পরিবর্তে আপনি এই সমস্ত ভাগ করছেন”। এর পাশাআশি আবার অন্য এক নেটিজেন লেখেন, “কী হল এইটা”?

অনেকেই কঙ্গনার এই পোস্টে নানান বিদ্রুপ করেছেন ও এর সঙ্গে রাগের ইমোজিও জুড়ে দিয়েছেন। তবে এসবের মধ্যেই আবার একজন কমেন্ট করেছেন, “জয় হিন্দ, আমি কয়েকদিন আগে ‘বোস’ ওয়েব সিরিজে এই গানটি শুনেছি”।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button