Entertainment

‘যতটা দুঃখ,ততটাই লজ্জার!’, বলিউড গায়ক কেকে’র হাঁসফাঁস করতে করতে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়াকে মানতে পারছেন না ডক্টর কুনাল সরকার! দিলেন বিস্ফোরক তথ্য

বরাবর রাজ্য সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন ডক্টর কুনাল সরকার। যদিও মমতা সরকার তাকে পাত্তা দেয় না কিন্তু এত বড় একজন গুণী চিকিৎসক যখন কোন অন্যায় করতে দেখেন তার প্রতিবাদ করেন। এবারেও তার অন্যথা হলো না। তিনি বর্তমানে যে পোস্টটি করলেন তাতে স্পষ্ট ম্যানেজমেন্টের গাফিলতিতে মৃত্যু হল বলিউড গায়ক কেকে’র।

গতকাল নজরুল মঞ্চে অস্বাভাবিক ভিড় হয়েছিল। যেখানে লোক ধরার ক্ষমতা আড়াই হাজার সেখানে ঢোকানো হয়েছিল সাত হাজার মানুষকে।এসি কাজ করে অনেক আগে বন্ধ করে দিয়েছিল এবং তারপরে নজরুল মঞ্চ কর্তৃপক্ষ এসি বন্ধ করে দেয়। গরমে প্রচণ্ড কষ্ট পাচ্ছিলেন কেকে। বারবার রুমাল দিয়ে ঘাম মুছছিলেন, জল খাচ্ছিলেন। তার ভিডিও এখন ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তিনি বারবার বলছিলেন চড়া আলো বন্ধ করুন,আমার পিঠে লাগছে। কেউ কথাই শোনেনি।তারপর অনুষ্ঠান শেষ করার পর এই ভীষণ অসুস্থ বোধ করেন তিনি এবং হোটেলে নিয়ে যাওয়ার পর তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয় এবং তখন তাকে সিএমআরআই তে নিয়ে যাওয়া হয় যেখান হৃদরোগের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে দু ঘণ্টা আগেই।

এই বিষয়ে এবার মুখ খুললেন ডক্টর কুনাল সরকার। তিনি একটি পোস্টে লিখলেন ব্যাপারটা যতটা দুঃখের ততটাই লজ্জার। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন বেসামাল ভিড়, এসি বন্ধ তাই অত্যধিক গরম, মুখের উপর সমানে ফায়ার এক্সটিংগুইশার স্প্রে করা, দু ঘন্টার উপরে সময় নষ্ট করে তারপরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া। শেষে লিখেছেন আমাদের ক্ষমা করো।

তিনি একজন ডাক্তার, মেডিকেল ইমার্জেন্সিটা তিনি দূর থেকে বুঝতে পেরেছেন অথচ উপস্থিত কেউ বুঝতে কেন পারল না এটা বোঝা যাচ্ছে না।ময়নাতদন্ত হচ্ছে এসএসকেএম-এ অথচ যখন শরীর খারাপ লাগছিল তখন মেডিকেল কলেজ বা এসএসকেএমে নিয়ে গেলে বাঁচানো যেত। বলছেন নেটিজেনরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button