Entertainment

‘আমাকে কেন ডাকা হয়নি?’, দাদাগিরিতে বাদ অনেক ‘বড় বড়’ কন্টেন্ট ক্রিয়েটররা!মনের দুঃখে যাদের ডেকেছে তাদের ঠুকে ভিডিও বানাল সিনে বাপ, হৃতিক অধিকারী! পাল্টা দিল বং গাই

বর্তমানে বিনোদন বলতে আমরা শুধু টিভি সিরিয়াল সেটা কিন্তু নয়। ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউবারে কন্টেন্ট ক্রিয়েশন বলে নতুন যে ক্রিয়েটিভ পেশা এসেছে তাতেও মানুষ যথেষ্ট উৎসাহী। বর্তমানে প্রচুর ইউটিউবার আছেন তাদের কন্টেন্ট আমরা প্রচন্ড পছন্দ করি। কেউ কমেডি ভিডিও করেন, কেউ ট্রাভেল ভ্লগ তো কেউ ফুড ভ্লগ।

ফেসবুক, ইউটিউবের এরকমই কিছু বিখ্যাত কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের কিছুদিন আগে দাদাগিরিতে ডাকা হয়েছিল। এসেছিলেন বং গাই কিরণ দত্ত, ঝিলাম গুপ্ত, দূর্বা দে, গৌরব তপাদার, তালপাতার সেপাই, জিরোওয়াট। সেই এপিসোড মানুষ খুব মজা করে রেখেছিলেন এবং সেখানে গিয়ে ভ্লগ করবেন না ইউটিউবাররা, সেটা হয় না। ইতিমধ্যেই দূর্বা এবং গৌরব তপাদার ভ্লগ বানিয়ে ফেলেছেন। কিন্তু বিতর্ক শুরু হল অন্য জায়গায়।

কেন আমাদের ডাকা হয়নি এই মর্মে এবার প্রতিবাদ শুরু করেছেন বেশ কিছু ইউটিউবার। ঋত্বিক অধিকারী নামে একটা রোস্টার প্রথম একটা ভিডিও তৈরি করেন এই নিয়ে। সেখানে তিনি দূর্বা থেকে যথেষ্ট অপমান করেন পরোক্ষভাবে। দূর্বা দে’কে মহিলা বলে রাখা হয়েছে, তাকে বাদ দিলে তো কোন মহিলা থাকতো না এরকম তিনি বলেন। তবে সব থেকে জঘন্য কাজটা করেছেন সিনে বাপ মৃন্ময় দাস। তিনি মীরাক্কেল থেকে প্রথম জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন কিন্তু বর্তমানে মীরাক্কেলের অনেক লোক তাকে সহ্য করতে পারে না।

তিনি দুদিন আগে একটা ভিডিও বানিয়ে উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গের কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের মধ্যে ঝামেলা বাঁধানোর চেষ্টা করেন তার কন্টেন্টের মধ্যে দিয়ে। সেখানে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন তাকে কেন ডাকা হয়নি কিন্তু সেটা সরাসরি বলেননি, ঘুরিয়ে বলেছেন। কিরণ দত্ত কে তিনি অপমান করেছেন। তার এই ভিডিওটা তার ভক্তদের ভালো লাগলো প্রচুর প্রোটেস্ট করেছেন এবং সকলেই বারবার বলছেন যে দক্ষিণ এবং উত্তরের বিভেদটা না করলেই পারতে। একথা সত্যি যে কলকাতার কনটেন্ট ক্রিয়েটররা যা সুবিধা পান সেটা উত্তরবঙ্গ বা একদম দক্ষিণবঙ্গের লোকেরা পান না।তার মানে এই না যে উত্তরবঙ্গের লোকেদের ভিডিও কেউ দেখেনা, দক্ষিণবঙ্গের লোকেদের ভিডিও কেউ দেখেনা, আলটিমেটলি এখানে ভিউজটাই শেষ কথা।

কিন্তু মৃন্ময় দাস সুচারুভাবে দুই বঙ্গের ক্রিয়েটরদের মধ্যে একটা বিভেদ তৈরি করার চেষ্টা করেছেন এবং সকলের মধ্যে কলকাতার ক্রিয়েটরদের বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তোলার কাজটা করেছেন। এবার তার পাল্টা জবাব দিয়েছেন কিরণ দত্ত।

তিনি মৃন্ময়ের বিরুদ্ধে ভালোমতো প্রমাণ জোগাড় করেছেন এবং তাকে তার রোস্টিং ভিডিও তে ভালোভাবে রোস্ট করে দিয়েছেন। যদিও কিরণ মৃন্ময় এর স্ত্রীকে টেনে এনেছে, এটা একদম উচিত হয়নি কিন্তু সিনেবাপের বেশ কিছু ভিডিও ক্লিপ দেখিয়েছে যেটা দেখে কোন সুস্থ স্বাভাবিক মানুষ বিশেষ করে মহিলারা ঠিক থাকতে পারবে না। মহিলাদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত রকমের বাজে বডি শেমিং, নোংরা রসালো যৌ’নগন্ধী কথাবার্তা বলা কিছু বাদ রাখেনি সিনেবাপ শুধুমাত্র হিউমারের নামে। কিরণ দত্ত যা বলার বলেছেন, মাঝে মাঝে সেটা একটু বেশি হয়ে গেছে। তবে সিনে বাপের নোংরামোর কাছে সেটা কিছুই নয়।

কিছুক্ষণ আগে আবার সিনে বাপ মৃন্ময় দাস পাল্টা ভিডিও এনেছে। সেই ভুলভাল যুক্তি আর ইমোশনাল ব্ল্যাকমেল। তার অন্ধ ভক্তরা তাকে নিয়ে লাফালাফি করলেও বেশিরভাগই তার নিন্দা করছেন।এখন বং গাই আবার পাল্টা জবাব দেবেন। এই লড়াই কখন থামে সেটাই দেখার।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button