Bangla Serial

সারাদিন মিঠাই কত কাজ করে তারপরেও মিঠাইয়ের উপর সিডের অসভ্যের মত চেঁচামেচি মেনে নিতে পারছেন না অনেকে, ‘পুরুষতান্ত্রিকতা দেখানো একটু বন্ধ হোক,স্বামী মানেই হম্বিতম্বি করা নয়’, বলছেন মিঠাইয়ের মহিলা ভক্তরা!

সকলেই খুব খুশি চলতি সপ্তাহে মিঠাই টিআরপি রেটিংয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। ফিরে এসেছে সিদ্ধার্থ, পিপিও প্রাথমিক দুঃখের ধাক্কা সামলে নাচের স্কুল খুলেছে। ওমি আগরওয়ালের ছোট বোনের সঙ্গে সুষ্ঠুভাবে বিয়ে হয়েছে স্যান্ডির। কিন্তু আজকের এপিসোডে এমন কিছু দেখানো হয়েছে যেটা দেখে বেশকিছু নেটিজেন রেগে গেছেন বিশেষ করে মিঠাইয়ের মহিলা ভক্তরা।

আজ পিঙ্কির সামনে সিদ্ধার্থ অফিস থেকে ফিরে এসে অসভ্যের মত মিঠাইয়ের উপর চিৎকার চেঁচামেচি করেছে। বলতে গেলে নিজের স্বামীত্ব দেখিয়েছে সে। বৌ’কে দু-চার কথা বলাই যায় তাই না? কিন্তু বউ পাল্টা বললেই দোষ হয়ে যাবে তখন সে অবাধ্য অসভ্য।

এক নেটিজেন খুব বিরক্ত হয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘সিড মিঠাইকে বকলো বলে কী কেউ সিডেল উপর একটু একটু রাগ করছেন?ধুর!একদম রাগ করবেন না।একটু বুঝুন, সিডকে অফিস সামলাতে হয় ওর তো মাথা গরম হতেই পারে। আর বৌ রা তো “সম্পত্তি”, রাগ হলে তার উপর ছাড়া আর কার উপর ঝাড়বে???

আর মিঠাই তো সারাদিন বাড়িতেই আয়েশ করে। ওর আবার কী কাজ? ওই তো সবাইকে সময়তো খাবার দেওয়া , রান্না করা এইসব এগুলো করতে আবার খাটনি হয় নাকি?নাকি এগুলো করতে গিয়ে কারোর মেজাজ গরম হয়?আর ওই তো দু একবার মিষ্টিতে পাক দিতে যায় ,তাই সারাদিন বাড়িতে নেচে গেয়ে বেড়িয়ে বরের এটুকু অপমান তো সহ্য করতেই হবে। যতই হোক দিন শেষে তো একটা “ময়রা”ই।


তার সঙ্গে সহমত অনেকেই। মিঠাইকে বাড়ির সব কাজ করতে হয়। নীপা একটুও সাহায্য করে না। সে সারাদিন রুদ্রদা রুদ্রদা করে বেড়ায়‌।টেসের কথা ধরার মধ্যেই নয়। ছোট কাকিমাকেও কোনো কাজ করতে দেখা যায় না এখন রাগ করা ছাড়া।‌ঠাম্মি বয়সের কারণে পারেন না। পিপি যা একটু করে এসে। আর হল্লা পার্টির উৎপাত তো আছেই। শ্রী আর নন্দা খালি বাপের বাড়ি আসে কিন্তু সাহায্য করে না মিঠাইকে। শুধু পিঙ্কিজি এখন সাহায্য করে। এগুলো এবার বদলানো দরকার বলে মত অনেকের।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button