Bangla Serial

পিলুতে দেখানো হয়না পিলুর গুরুত্ব, প্রোমো বানানো হচ্ছে রঞ্জা-মল্লারকে নিয়ে! ‘যদি সাইড চরিত্ররাই এত গুরুত্ব পাই তাহলে ধারাবাহিকের নাম বদলে দিক’, বিশাল ক্ষুব্ধ পিলুর ভক্তরা

জি বাংলা অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক পিলু কিন্তু বর্তমানে যে জিনিসটা দেখা যাচ্ছে তাতে ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন দর্শকরা। পিলু ধারাবাহিকে কালকে আমরা খেলনা বাড়ির সঙ্গে মহামিলন পর্ব দেখেছি। ধারাবাহিকে কিছুদিন আগেই বিধবা বিবাহের মতো একটা সুন্দর গল্প দেখানো হয়েছে যেটা অনেক প্রশংসিত হয়েছে। রঞ্জা যেভাবে মল্লারকে প্রতিহত করে এবং বসুমল্লিক পরিবারের গোঁড়ামি ভাঙ্গে একের পর এক তাও মানুষের বেশ পছন্দ। কিন্তু এত কিছুর মধ্যে পিলু কোথায়?

যাকে নিয়ে ধারাবাহিক সেই পিলু এখন নিরুদ্দেশ। পিলুর চরিত্রটা ধারাবাহিকে গুরুত্ব হারিয়ে ফেলেছে তার জায়গা নিয়েছে রঞ্জা এবং মল্লার। আগে পিলু কী সুন্দর করে এক একটা সমস্যার সমাধান করত। তার সঙ্গে যোগ্য সঙ্গত দিত আহীর কিন্তু বর্তমান এপিসোড গুলোতে দেখা যাচ্ছে রঞ্জা বসুমল্লিক পরিবারে বিয়ে হয়ে আসার পর রঞ্জা এবং মল্লারের গল্প গুলোকেই বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

এমনকি নতুন যে প্রোমো এখন পিলুতে দেখানো হচ্ছে তাতে শুধুমাত্র রঞ্জা আর মল্লার রয়েছে অথচ ধারাবাহিকের নাম পিলু। এই বিষয়টা নিয়েই ক্ষিপ্ত হয়ে গেছেন নেটিজেনরা। তারা বলছেন যে যখন ধারাবাহিকের নাম পিলু তাহলে আপনারা প্রোমো বানাচ্ছেন রঞ্জা আর মল্লারকে নিয়ে? এখন ধারাবাহিতে পিলুর দৃশ্যও এমনকি থাকে না বেশি।

আগে পিলু অন্যায়ের প্রতিবাদ করত আর এখন পিলু সারাক্ষণ সমঝোতার কথা বলে। সে চায় মুখার্জি বাড়ি আর বসুমল্লিক পরিবারের ঝামেলা শেষ হয়ে যায় তার জন্য বসুমল্লিক পরিবারের অন্যায়গুলো মেনে নিতে হবে সেটা তো কোন কথা নেই। যে পিলু আগে প্রতিবাদ করত সে এখন সারাক্ষণ বলছে ওস্তাদজি থাক না ঝামেলার দরকার নেই।

দর্শকরা বলছেন যে অবিলম্বে পিলু কে গুরুত্ব দিয়ে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হোক এবং নতুন প্রোমো দেওয়া হোক পিলু কে নিয়ে। অনেকেরই মনে হতে শুরু করেছে যেহেতু মেঘা একদম নবাগতা তাই তাকে নিয়ে তৈরি হওয়া সিরিয়ালে হয়তো বাকি পুরনো কলাকুশলীরা আপত্তি করেছেন।অনেকের মনে হচ্ছে যে যেহেতু ইধিকা আগে রিমলি ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাই এখন হয়তো চ্যানেল তাকে আবার পিলুর মাধ্যমে ধীরে ধীরে মুখ্য ভূমিকায় আনার প্ল্যান করছে। তাহলে ধারাবাহিকের প্রধান মুখ হিসেবে তাকেই নিতো। মেঘাকে নিয়ে তাকে এখন সাইড ক্যারেক্টারে পরিণত করার তো কোন দরকার ছিল না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button