Bangla Serial

মজার ছলে পরিবারের ছোট ছেলে স্যান্ডির উপর হল্লা পার্টির অত্যাচার আর মেনে নিতে রাজি নন মিঠাইয়ের ভক্তরা! স্বামীকে নিয়ে এমন মজা করা পছন্দ নয় পিংকিরও, মোদক পরিবারে আবার হবে গন্ডগোল?

সুখে-দুখে মিষ্টিমুখে মিঠাই, দেখতে দেখতে দেড় বছর কাটিয়ে দিল। মাঝে পিসেমশাই এবং ওমি আগারওয়ালের শত্রুতায় ভেঙে পড়েছিল মোদক পরিবার তবে আবার মিঠাই আর সিড মিলে পিপিকে হাসি খুশি করার জন্য নতুন উদ্যোগ নিয়েছে। পিপির জন্য মনোহরাতেই নাচের স্কুল খোলা হয়েছে।

এই পর্যন্ত দেখে দর্শকরা ভীষণ খুশি ছিল তবে আজকের এপিসোড দেখে হল্লা পার্টি এবং সিডের প্রতি বেশ রাগ জমেছে দর্শকদের।আমরা সব সময় দেখে থাকি হল্লা পার্টি বিশেষ করে রাজীব পরিবারের ছোট ছেলে স্যান্ডি কে নিয়ে ভীষণ মজা করে।সারাক্ষণ তাকে ধরে মারধর চুল দাড়ি ধরে টানা এসব চলতেই থাকে।যদিও সবটাই মজার ছলে হয়ে থাকে কিন্তু মাঝে মাঝে ভীষণ বাড়াবাড়ি হয়ে যায় যেমন আজকে হল। একেতে বিয়ের পর হল্লা পার্টির জ্বালাতে কোনরকম প্রাইভেসি পাচ্ছে না পিংকি আর স্যান্ডি।

তবে আজকে জোকার বানিয়ে রাস্তায় ঘোরানো হয়েছে স্যান্ডিকে আর তার উদ্যোক্তা ছিল রাজীব‌। এই ঘটনাটা পিংকি মনোহরার ব্যালকনি থেকে দেখতে পেয়েছে আর তার মুখে সঙ্গে সঙ্গে নেমে এসেছে অন্ধকার।ব্যস, এইটুকু দেখতে পেয়েই কিছু মিঠাই ভক্ত চিল চিৎকার জুড়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়, বলেছিলাম না ওমি আগরওয়ালের বোন নেগেটিভ ক্যারেক্টার হবে। হল্লা পার্টিকে তো সহ্য করতে পারছে না পিংকি।

কিন্তু অধিকাংশ মিঠাই দর্শক বলছেন আলাদা কথা। একজন মিঠাই ভক্ত তার সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলে লিখেছেন,’ কিছু পোস্ট দেখলাম পিংকি নাকি নেগেটিভ হবে…হলে খুশি হতাম।স্যান্ডিকে নিয়ে সবসময় এরকম সার্কাস করাটা এবার সত্যিই বন্ধ করা দরকার… এখন লোকজনদের হাসানোর যেনো এই একটাই টপিক হয়ে গেছে… একটা মানুষকে নিয়ে সবসময ওরকম কেনো করা হয় ??? খুব বিরক্তিকর হয়ে যাচ্ছে দিনদিন এটা , গত এপিসোড থেকেই এটা মনে হচ্ছে। …. আর কথায় কথায় সিডের ওই তেড়ে তেড়ে যাওয়া টাও বড্ড বাড়াবাড়ি লাগে…..
এটা এবার বন্ধ হওয়া উচিত।

আজকের স্যান্ডি কে ওরকম অবস্থায় দেখার পর যদি রাগ করতো বা react করতো একটুও অবাক হতাম না , বরং খুশিই হতাম…কিন্তু তা না করে গদগদ হয়ে দুধ নিয়ে চলে এলো…
এতো ভালোমানুষিরও দরকার ছিল না..।’

অধিকাংশ মানুষ বলছেন যে এখন স্যান্ডির বিয়ে হয়েছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই হল্লা পার্টির একটু সংযত হওয়া দরকার। পরিবারের ছোট বলে তাকে নিয়ে মজা ঠাট্টা করাটা যেন মাত্রা ছাড়িয়ে না যায়।স্বাভাবিক ভাবেই নিজের স্বামীকে যদি পরিবারের অন্যান্যরা মজার ছলেই জোকার বানিয়ে রাস্তায় ঘোরায় সেটা কোন স্ত্রী’র ভালো লাগবে না।

সেইজন্যে দর্শকরা শাশ্বতী ঘোষের কাছে অনুরোধ করেছেন যে এবার একটু হল্লা পার্টিকে যেন ফ্যামিলিকে নিয়ে মজা করানোটা কম করা হয়‌। আর সিদ্ধার্থের কথায় কথায় স্যান্ডির দিকে তেড়ে যাওয়া জিনিসটাও যেন বন্ধ করা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button