Bangla Serial

Sunanda Chakraborty: দুর্গা সাজে গাঁটছড়ার সাংবাদিক শ্রুতি! “ভুঁড়িওয়ালা দুর্গা, কি বিচ্ছিরি হাসি”! চরম কটাক্ষের শিকার নায়িকা

গতকাল ছিল মহালয়া। পিতৃপক্ষের অবসান ঘটিয়ে মাতৃপক্ষের সূচনা হলো এই পবিত্র দিনে। আর বাঙালির পুজো আনুষ্ঠানিকভাবে এই দিন থেকেই শুরু হয়ে গেল। এই পাঁচটা দিনের আশায় বাঙালি সারা বছর অপেক্ষা করে থাকে। এই অপেক্ষাটাই আসল। কারণ ষষ্ঠী এসে গেলেই হু হু করে আনন্দের মুহূর্তগুলো শেষ হয়ে যাবে।

মহালয়া য় মানুষের আনন্দকে আরো দ্বিগুণ করে দেয় বিভিন্ন বাংলা চ্যানেলগুলির বিভিন্ন রকমের অনুষ্ঠান। আজকাল বিভিন্ন বাংলা সিরিয়ালের নায়ক বা নায়িকারা দুর্গা, অসুর বা অন্যান্য রূপে ধরা দেন টেলিভিশনের পর্দায়। দর্শক তাঁদের বরাবর যেভাবে দেখতে অভ্যস্ত একেবারেই তার থেকে আলাদা রূপে হাজির হন তাঁরা।

তবে শুধু টেলিভিশন নয়, আজকাল এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে নানা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। ফেসবুক, ইউটিউব, ইনস্টাগ্রাম থেকেও বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করছে তারকারা। তাই কিছু কিছু বিশেষ মহালয়া স্পেশাল অনুষ্ঠান দেখা যায় ওই মিডিয়াগুলিতেও। এমনই এক নতুন রূপে আবির্ভূত হলেন অভিনেত্রী সুনন্দা চক্রবর্তী।

গাঁটছড়া' সিরিয়ালের সুন্দরী রিপোর্টার শ্রুতি অভিনেত্রীর আসল পরিচয় – Bong Trend – Bangla Entertainment News and Viral News


সুনন্দাকে মানুষ তাঁর আসল নামের থেকে শ্রুতি নামেই বেশি চেনে কারণ এই নামেই এখন টেলিভিশন কাঁপাচ্ছেন তিনি। স্টার জলসার জনপ্রিয় গাঁটছড়া সিরিয়ালে সাংবাদিক শ্রুতিকে মনে আছে তো? এই সেই শ্রুতি। তবে এবার তিনি মা দুর্গা।

এমনই এক সাজে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন সুনন্দা। তাতে নায়িকাকে একেবারে দেবী দুর্গার সাজে অপূর্ব লাগছে। সেই সঙ্গে মানানসই গয়না আর মেকআপ। সব মিলিয়ে এই লুক বেশ আভিজাত্যপূর্ণ। নায়িকার এই সাজ দেখে ভক্তরা তো অবাক। একটি ভিডিও দেখা গেল তাঁর। সুনন্দা নিজেই ভিডিও শেয়ার করেছেন। মুকুট, ত্রিনয়ন দেখে কারুর আর বুঝতে নাকি রইলো না যে এটা কিসের সাজ।

বোঝাই যাচ্ছে কোনো এক ফটোশুটের ছবি এটা। তবে এই ভিডিও সামনে আসতেই একদল কটাক্ষ করতে শুরু করে দিলো। অনেকেই নানা মত পোষণ করেছে। কেউ বলছে হস্যকর, আবার কেউ প্রশ্ন করেছে ঠাকুরের গয়না মানুষকে কেনো পরালো। আবার কেউ শুধু লিখেছে ভুঁড়ি। আবার একজন লিখেছে এত সুন্দর দুর্গা দেখলে অসুরের লাইন লেগে যাবে যে কে আগে মরবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button