Bangla Serial

বরফির অনুরোধে দেবিনা রেডিও স্টেশনে ফোন করে জানালো সমরেশের বাড়ির কুকীর্তি! দেবিনার জয়জয়কার সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে

বিনোদন জগতের সিরিয়ালের জুড়ি মেলা ভার। সিরিয়াল দেখে আমরা আমাদের বিনোদনের রসদটুকু তুলে নিই। করোনা পরিস্থিতিতে বাইরে বেরোনোর অভ্যাস আমাদের একদম চলে গেছে। বাইরে বের হলেও আগের মত স্বতঃস্ফূর্ততা আমরা যেন এখনো ফিল করতে পারিনা। সেই কারণে আমরা এখন বাড়িতে বসে টিভি দেখতেই অভ্যস্ত।

সেই কথা মাথায় রেখেই নতুন নতুন অনেক সিরিয়াল আনছে স্টার জলসা এবং জি বাংলা। স্টার জলসা যেমন এনেছে অনুরাগের ছোঁয়া,গুড্ডি, গোধূলি আলাপ। সেরকম জি বাংলা এনেছে পিলু, লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার,গৌরী এলো। এরকম আরো অনেক নতুন সিরিয়াল আসছে দুটো চ্যানেলে আর সেগুলো দেখার জন্য অপেক্ষা করে রয়েছেন দর্শকরা।

তবে একটু পুরনো সিরিয়াল গুলোর মধ্যে স্টার জলসায় বেশ জনপ্রিয় সিরিয়াল হলো আয় তবে সহচরী।শাশুড়ি বৌমার অসমবয়সী বন্ধুত্ব এবং সহচরীর কলেজ যাত্রা পড়াশোনা এবং বড় হওয়া এই ছিল গল্পের মূল উপজীব্য। কিন্তু পরবর্তীকালে গল্পে পর’কীয়া ঢুকিয়ে পুরো নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে গোটা জিনিসটাকে।

সমরেশ এবং সহচরীর জীবনে দেবিনার আগমন ঝড়ের মত এবং দীর্ঘ কয়েকটা মাস ধরে দেবিনা রীতিমত চেষ্টা করেছে সহচরীর জীবন বিষিয়ে দেওয়ার। দেবিনা আবার সহচরীর ছেলের বউ বরফির নিজের বোন। অন্যদিকে আমরা দেখেছি যে সহচরী সমরেশের মুখে ডিভোর্স পেপার ছুঁড়ে মেরেছে।

কিন্তু পরবর্তীকালে দেবিনা সন্তানসম্ভবা হওয়ায় দেবিনার সন্তানকে লালন পালনের জন্য নিজের শ্বশুরবাড়িতে থেকে গেছে সহচরী। সহচরীর এতটা মহান অবতার কিছুতেই সহ্য করতে পারছেন না দর্শকরা। তার উপর যে রকম ভাবে সমরেশ আর তার বাড়ির লোকজন ক্রমাগতভাবে সহচরীকে হেনস্থা অপমান লাঞ্ছনা করে যাচ্ছে তার পরেও সহচরী কী করে ওই বাড়িতে থাকছে সে কথা মাথায় ঢুকছে না দর্শকদের।

গতকালের এপিসোড অবশ্য সেরা হয়েছে এবং দেবিনার জয়জয়কার চলছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। গতকাল শয়তানি করে সমরেশ তার মা এবং সমরেশের দুই বোন পলা আর বন্যা রেডিও ষ্টেশনে ফোন করে সহচরীর নামে উল্টোপাল্টা কথা বলে। যা বিশ্বাস করে নেয় শ্রোতারা এবং সহচরীর শো বন্ধ করার দাবি তোলে।

নিজের সই মাকে বাঁচাতে বরফি তখন নিজের দিদি দেবিনার সাহায্য চায় আর বলে যে তুমি সত্যি কথাটা বলো। দেবিনা তখন রেডিও স্টেশনে ফোন করে নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া সমরেশের কুকীর্তি ফাঁস করে দেয় আর সমরেশের বাড়ির লোকজন সেই শুনে স্তম্ভিত হয়ে যায়। এমনিতেই সহচরীর চাকরি কাটতে গিয়ে সমরেশের নিজের চাকরিই চলে গেছে।

দেবিনার এইভাবে সহচরীর পাশে দাঁড়ানোয় সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে সহচরীর ভক্তরা দেবিনার জয়জয়কার করছে এবং তারা বলছেন যে আসল কালপ্রিট কিন্তু দেবিনা নয় আসল শয়তান হল সমরেশ তার বাড়ির কয়েকজন।

অন্যদিকে এত কিছু সহ্য করতে না পেরে সহচরীর ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাক হয়। তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বাঁচবে তো সহচরী?তা জানতে গেলে আপনাকে চোখ রাখতে হবে স্টার জলসার পর্দায়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button