Bangla Serial

Guddi: শিরিনের কাছে ডিভোর্স চাইলো অনুজ! এবার শুরু নতুন খেলা

এই মুহূর্তে বাংলা টেলিভিশনের সবচেয়ে চর্চিত ধারাবাহিক হল স্টার জলসার লীনা গাঙ্গুলীর লেখা ধারাবাহিক ‘গুড্ডি’। যেখানে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যায় অভিনেত্রী শ্যামৌপ্তি মুদলী এবং অভিনেতা রনজয় বিষ্ণুকে। শুরুর প্রথম থেকেই একের পর এক বিষয় নিয়ে এই ধারাবাহিক চর্চার শিরোনামে এসেছে। এবং সেই সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়াতে ট্রোল হতেও দেখা গেছে।

তবে সম্প্রতি আরও বেশি করে এই ধারাবাহিক নিয়ে সমালোচনা এবং কটাক্ষ হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। ধারাবাহিকের সাথে সাথে লেখিকা লীনা গাঙ্গুলির সমালোচনাও করা হচ্ছে। কারণ দর্শকদের একাংশের মত লেখিকা তার ধারাবাহিকের গল্পে সব সময় ত্রিকোণ প্রেম এবং প’র’কী’য়া দেখান। আর এই ধারাবাহিকেও তাই দেখাচ্ছেন। গুড্ডি, শিরিন, অনুজ , যুধাজিত এদের জীবনকে এমন একটি পরিস্থিতিতে এনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন যা নিয়ে বিরক্ত দর্শক।

সম্প্রতি এই ধারাবাহিক নিয়ে এক সোশ্যাল মিডিয়া কনটেন্ট ক্রিয়েটার অথবা রোস্টার ইউটিউবে ‘চিরকুট ইন'(ChirkutIN) চ্যানেলে রোস্ট করেছেন। তার মতে লীনা গাঙ্গুলীর ধারাবাহিকে কখনোই ভালো মানুষের সাথে ভালো হয় না। তিনি বলেন এর আগেও আমরা দেখেছি ‘ধুলোকণা’তে অঙ্কুরের সাথে শেষে কী হল! এবং সেইসঙ্গে গুড্ডি ধারাবাহিকেও যুধাজিতের সঙ্গে একই হচ্ছে। এবার নয় শেষে আমরা যুধাজিৎকে একাই দেখতে পাবো অথবা খলনায়িকার সঙ্গে বিয়ে দিয়ে দেওয়া হবে। তবে সেটা পুরোটাই লেখিকার মুডের ওপর নির্ভর করছে।

সেই সঙ্গে তিনি ধারাবাহিকের আসন্ন ট্র্যাক নিয়ে কথা বলেছেন। প্রসঙ্গত আমরা গুড্ডি ধারাবাহিকের আসন্ন ট্র্যাকে দেখতে পাবো গুড্ডি আইপিএস অফিসার হওয়ার জন্য ট্রেনিং নিতে যাচ্ছে। আর সেখানেই আর কী কী হবে সেটা এই কনটেন্ট ক্রিয়েটর নিজের মনের মতো করেই বলেছেন। তার মতে এতদিন ধরে যেটা ঘরের মধ্যে হচ্ছিল সেটা এবার ট্রেনিং সেন্টারে হবে।

কারণ গুড্ডি যেখানে ট্রেনিং নিতে যাবে সেখানে ট্রেনিং দেওয়াবে সেই অনুজ। আর তারপরেই আবার শিরিন এবং গুড্ডির মধ্যে ঝামেলা হবে। আবার যে ট্র্যাক চলছে সেই একই ট্র্যাকে চলবে। তবে এবার ঝামেলাটা হবে কখনো পুলিশ স্টেশনে অথবা কখনো ট্রেনিং সেন্টারে। তার কথায় গুড্ডি তো পুলিশ আইপিএস অফিসার হয়ে গেল! তবে দেখতে দেখতে এবার কি সে প্রেগন্যান্টও হয়ে যাবে! এসব কিছু নিয়ে তিনি একটি রোস্টিং ভিডিও বানিয়েছেন যা দেখে বেশ মজা পেয়েছে দর্শক। তার কারণ এই ধারাবাহিক নিয়ে খুবই বিরক্ত দর্শকরা তা বহুদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়া দেখলেই বোঝা যায়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button